ফাতেমা তুজ জোহুরা

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

পেট ব্যাথা দূর করতে প্রাকৃতিক খাবার

২৩ মে, ২০১৮ ২৩:৪৬:৩৬

যাঁরা পেটের রোগী তাঁরা কারণে অকারণে পেটের সমস্যায় ভোগেন। হতেই পারে সেটা অতিরিক্ত গরম থেকে, কিংবা বর্ষায় ফুড পয়জনিং, ক্রমাগত জাঙ্ক ফুড খেয়ে পেটে সংক্রমণ, খাবার থেকে অ্যালার্জি, অত্যধিক স্ট্রেস, অপরিমিত মদ্যপান অথবা পেটরোগা বলে। এই ব্যথা অনেক সময় মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এই সমস্যা দূর করতে ঘরোয়া ব্যবহার করতে পারেন। দেখে নিন কি কি ঘরোয়া পদ্ধতি এক্ষেত্রে কাজে আসে-

১) ডাবের জল-
বারেবারে ব্যথা মানেই শরীরে ইলেকট্রোলাইটের ভারসাম্য আর জলের অভাব। এই অভাব পূরণে ডাবের জলের কোনও বিকল্প নেই। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনীয় পুষ্টির ঘাটতি দূর করে পেটের উন্নতি ঘটাতেও এই প্রাকৃতিক উপাদানটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে। পেট খারাপ হলে দিনে কম করে ২ গ্লাস ডাবের জল খেতে হবে।

২) দই-
পেটখারাপ হলেই একবাটি তাজা টকদই চাইই। তাহলেই বারেবারে বাথরুম ছুটতে হবে না। টকদইয়ে প্রচুর পরিমাণে ল্যাক্টোব্যাসিলাস এবং বিফিডোব্যাতটেরিয়াম নামে দু’ধরনের ব্যাকটেরিয়া আছে, যা হজমক্ষমতার উন্নতির পাশাপাশি ডায়ারিয়া কমাতে সাহায্য করে। রোজ ২-৩ কাপ টকদই খেলে এমনিতেই পেট ভালো থাকবে।

৩) লেবুর জল-
পেটের সমস্যায় লেবুর জলের সত্যি-ই কোনও বিকল্প নেই। লেবুতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি প্রপাটিজ পেটের প্রদাহ কমায়। সেই সঙ্গে ফলটিতে থাকা নানা খনিজ, বিশেষত পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম পেটের রোগের সমস্যা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তাই পেটখারাপে বারেবারে লেবু-নুন-চিনির জল দিতেই পারেন রোগীকে। এছাড়া,রোজ ভাতের সাথে একটুকরো লেবু খেলে শরীরে ভিটামিন সি-র অভাব মেটে।

৪) অ্যাপেল সিডার ভিনিগার-
চটপট পেটখারাপ কমাতে চান। তাহলে অ্যাপেল সিডার ভিনিগার আপনার জন্য উপযুক্ত। এতে থাকা প্যাকটিন পেটের যন্ত্রণা কমায়। কিন্তু সরাসরি তো অ্যাপেল সিডার ভিনাগার খাওয়া যায় না। এক গ্লাস জলে এক চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনিগার মিশিয়ে নিন। খাবার খাওয়ার পরে এক গ্লাস করে এই পানীয় খেলে দারুণ উপকার পাবেন। চাইলে এই মিশ্রনে অল্প মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন।

৫) আদা-
পেটখারাপ কমাতে আদা এক এবং অদ্বিতীয়। কারণ এতে উপস্থিত অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ এই রোগ সারাতে দারুণ কাজে দেয়। এক কাপ বাটার মিল্কে আধ চামচ আদাগুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন। এই পানীয়টি দিনে ৩-৪ বার খেলেই দেখবেন সমস্যা কমতে শুরু করে দিয়েছে। যাঁদের উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে তাঁরা ভুলেও এই ঘরোয় পদ্ধতিটিকে কাজে লাগাবেন না।

বিডি২৪লাইভ/এফটিজে/এমআর


বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: