ফাতেমা তুজ জোহুরা

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

হেডফোন কেনার আগে লক্ষণীয় বিষয়

২৪ মে, ২০১৮ ০৯:১৫:৩৯

আজকল আমরা শুধুমাত্র গান শোনার জন্যই হেডফোন ব্যবহার করি না। ট্রেনে,বাসে পারিপার্শিক পরিস্থিতি থেকে দূরে সরে যেতে আমাদের সবথেকে পছন্দের উপয় হেডফোন। আমরা প্রত্যেকেই আলাদা ধরনের আওয়াজ পছন্দ করি। তাই একই হেডফোন দুটি আলাদা মানুষের পছন্দ নাও হতে পারে।

বাজারে হাজার রকমের হেডফোনের মধ্যে না শুনে কোন হেডফোনটি আপনার ভালো লাগবে তা বোঝা মুশকিল। আসুন দেখে নেওয়া যাক নতুন হেডফোন কেনার সময় কোন বিষয়গুলি মাথায় রাখা উচিৎ-

১) কি ধরনের হেডফোন আপনার প্রয়োজন-
প্রধানত দুই ধরনের হেডফোন পাওয়া যায় বাজারে। ফুল সাইজ হেডফোন ও ইয়ার ফিটিং হেডফোন। গান সোনা যদি আপনার হেডফোন কেনার মুখ্য উদ্দেশ্য হয় তবে আপনি কিনতে পারেন এই ফুল সাইজ বা ইন ইয়ার হেডফোন। ইন ইয়ার হেডফোনে বাইরের আওয়াজ কানে কম আসে। তাই নয়েজ ক্যান্সেলেশন যদি আপনার মুখ্য উদ্দেশ্য হয় তবে আপনি দেখে নিতে পারেন ইন ইয়ার হেডফোন।

২) ফ্রিকোয়েন্সি রেঞ্জ-
মানুষ ২০ হার্জ থেকে ২০০০ হার্জ পর্যন্ত তরং দৈর্ঘ্যের আওয়াজ শুনতে পারে। আপনি যদি হেডফোনে বেশি বেস চান তবে এমন হেডফোন খুঁজুন যার ফ্রিকোয়েন্সি রেঞ্জের নিচের লিমিট কম। আর ২০০০০ হার্জের বেশি ফ্রিকোয়েন্সির হেডফোন কেনার কোন কারন নেই। কারন মানুষ সেই তরং দৈর্ঘ্যের আওয়াজ শুনতে পায় না।

৩) ইম্পিডেন্স-
যে কোন হেডফোন যে প্লেয়ার থেকে চলছে সেই প্লেয়ার থেকেই ইলেক্ট্রিক কারেন্টের মাধ্যমে চলে। হেডফোনের পাওয়ার সোর্স অবশ্যই প্লেয়ার। ইম্পিডেন্স হচ্ছে এই ইলেক্টিক কারেন্টের রেসিস্ট্যান্টের পরিমাপ। অর্থাৎ ইম্পিডেন্স ভ্যালু কম হলে বেশি জোরে আওয়াজ শোনা যাবে সেই হেডফোনে। যদিও মাথায় রাখা প্রয়োজন হাই ইম্পিডেন্স হেডফোনের নিজস্ব সুবিধা রয়েছে। এই হেডফোনে জোরে আওয়াজ দিলেও আওয়াজ ফেটে যাওয়ার সুযোগ কম। প্রফেশানাল অডিও মিক্সিং এর জন্য হাই ইম্পিডেন্স হেডফোন বেশি ভালো।

৪) ম্যাগনেট টাইপ-
ফেরিট ও নিওডিমিয়াম প্রধাণত এই দুই ধরনের ম্যাগনেট ব্যবহার হয় হেডফোনে। চেষ্টা করুন নিওডিমিয়াম ম্যাগনেটের হেডফোন কিনতে। একই চুম্বকত্ব থাকলেও নিওডিনিয়াম ম্যাগনেটের ওজন ফেরিটের থেকে অনেকটাই কম হয়। এর ফলে অনেকটাই কমে যাবে আপনার হেডফোনের ওজন।

যে কোন হেডফোন কেনার সময় বাক্সের গায়ে অথবা অনলাইনে স্পেসিফিকেশনে এই তথ্য পেয়ে যাবেন। আর পরের বার হেডফোন কেনার সময় খেয়াল রাখতে হবে এই তথ্যগুলি।

বিডি২৪লাইভ/এফটিজে/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: