শাহাদাত হোসেন রাকিব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

মাদকবিরোধী অভিযান, যা বললেন বেনজীর

২৫ মে, ২০১৮ ১৮:৩৫:০০

মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, এটি অনেক বড় অপারেশন। এই অভিযান কার্যকারিতা পাচ্ছে বলেই সবাই ফলো করছে। আমাদেরকে ধৈর্য নিয়ে কাজ করতে হবে। এটা ১০ বা ২০ দিনের অপারেশন নয়। দুই সপ্তাহের অপারেশন দিয়ে এটা নির্মূল করা সম্ভব নয়।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি টক-শোতে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

বেনজীর আহমেদ বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত কি করছি, কি করব তা নিয়ে মিটিং করি। একই সাথে প্রতি মুহূর্তে আমাদের কৌশল আপডেট করি। আমাদের যে ঘাটতিগুলো রয়েছে, সেগুলো নিয়ে কথা বলছি।

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সিরিয়াসলি প্রত্যাশা করেন যে, এখান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। মাদক থেকে মুক্তির প্রয়োজন বলে দেশের প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে। সে কারণে একটি সুযোগ এটি। আসুন, আমরা যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ি। চল যাই, যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে’- বলেন তিনি।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের কৌশল পাল্টাচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের সীমান্তের নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য। সে সঙ্গে সমুদ্রে কোস্টগার্ডের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। সরকার সচেতন। সীমান্তে বিজিবি কাজ করছে।

তিনি বলেন, প্রত্যেকেই নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করতে হবে। আমি আহ্বান জানাচ্ছি, যার যে ক্যাপাসিটি আছে সেটা নিয়ে সাহায্য করেন। অন্তত তথ্য দিয়ে সাহায্য করুন। মাদক ব্যবসায়ীরাকে কোথায় ব্যবসা করছেন তা জানাতে পারেন। আমাদেরকে অনেকে জানাচ্ছেনও।

তিনি আরও বলেন, আমরা মাদকবিরোধী ১০ লাখ স্টিকার লাগাব। সেখানে আমাদের নম্বর থাকবে। এ যুদ্ধে দেশবাসীর সহযোগিতা চাই। আমরা যদি সবাই একত্রিত হই, তাহলে এই আগ্রাসন থেকে বেরিয়ে আসতে পারবো।

এ সময় মাদকসেবীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা মাদক সেবন করেন, তারা সেবন বন্ধ করুন, যারা ব্যবসা করেন, তারা ব্যবসা বন্ধ করুন। আমি শুরু থেকেই এ আহ্বান জানাচ্ছি।

মাদকসেবীদের পরিবারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রত্যেক পরিবারকে বলবো, কেউ যদি মাদকসেবী থাকেন, তাহলে তার চিকিৎসা করান, পুনর্বাসন করান। পরিবারের দায়িত্ব নেয়া উচিৎ।


বিডি২৪লাইভ/এএইচআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: