শাহাদাত হোসেন রাকিব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

‘একটা চকলেট নেন, চকলেট’

২৪ জুন, ২০১৮ ২৩:৩২:০০

ছবি: প্রতিনিধি

কতই বা বয়স হবে তার? চার কিংবা পাঁচ। এখনও ঠিকমত কথাও বলতে পারেনা সে। এই বয়সে অন্য আট-দশটা শিশুর মত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে হাসি-খুশি আর দুষ্টামিতে মেতে থাকার কথা ছিল তার। কিন্তু সেই সুখ কপালে নেই ছোট্ট এই শিশুটির। এই বয়সেই রাজধানীতে চকলেট বিক্রি করতে নেমেছে সে।

রবিবার (২৪ জুন) রমনা পার্কে দেখা মেলে তার। ‘একটা চকলেট নেন, চকলেট’ এ কথা বলতে বলতে সামনে আসলো মেয়েটি। নাম জিজ্ঞেস করতেই জানালো, রিতা। তবে বয়সের বিষয়ে নিজের অজানা তার। বয়স জিজ্ঞেস করতেই বলল, ‘জানি না।’

বিডি২৪লাইভের প্রতিনিধি শাহাদাত হোসেন রাকিবকে রিতা জানায়, ‘তার বাবা মারা গেছেন অনেক আগেই। মা এবং তিন ভাই-বোনসহ মোট চার জনের সংসার তাদের। বাসা মগবাজারে। তার মা শাহবাগ শিশুপার্কের সামনে ফুল বিক্রি করেন। আর পার্কে চকলেট বিক্রি করে রিতা। চকলেট বিক্রি করে যা আয় হয় সে তার মাকে দিয়ে দেয়।’

রিতা বলে, ‘প্রতিদিন সকালে আমি এবং আমার মা বাসা থেকে বের হই। মা শিশুপার্কে ফুল বিক্রি করে। আর আমি এখানে চকলেট বিক্রি করি। সন্ধ্যা হলে আবার বাসায় চলে যাই।’

চকলেট বিক্রি করার জন্য প্রতিদিন রমনা পার্কের এপার থেকে ওপারে কয়েকবার ঘোরা হয়ে যায় তার। মাঝে-মধ্যে শিশুপার্কেও চকলেট বিক্রি করে সে। এভাবেই সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাইরেই কাটে তার সময়।

তবে, চকলেট বিক্রি করলেও পড়াশোনা করার প্রবল ইচ্ছা রিতার। বলে, ‘আমি মাদ্রাসায় ভর্তি হব; মাকে বলেছি, মাদ্রাসায় ভর্তি করিয়ে দেয়ার জন্য। মা বলেছে, মাদ্রাসায় ভর্তি করিয়ে দেবে।’

বিডি২৪লাইভ/ওয়াইএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: