ফাতেমা তুজ জোহুরা

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

বন্ধ হয়ে গেল ইয়াহু ম্যাসেঞ্জার!

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০৯:৪৫:১৬

ছবি: ইন্টারনেট

২০ বছরের যাত্রার ইতি টেনে অবশেষে বন্ধ হয়ে গেল ইয়াহু ম্যাসেঞ্জার। গতকাল সংস্থার তরফ বন্ধ করে দেওয়া হয় ৯০ এর দশকের সেরা এই মেসেঞ্জারকে। তবে কী কারণে এই পদক্ষেপ তা জানায়নি সংস্থা।

গতমাসেই তাদের ম্যাসেঞ্জার বন্ধের কথা ঘোষণা করেছিল ইয়াহু। তবে বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, স্কাইপের মতো সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্টের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরেই এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ইয়াহু ম্যাসেঞ্জার বন্ধ করলেও সংস্থা তাদের স্কুইরেল অ্যাপের মাধ্যমে ম্যাসেঞ্জারের খোলা রাখবে।

ইয়াহু মেসেঞ্জারের যাত্রা শুরু করে ১৯৯৮ সালে।তখনও ইন্টারনেট বিষয়টা বহু মানুষের কাছে ভিনগ্রহের কিছু একটা।অল্প দিনের মধ্যেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ইয়াহু মেসেঞ্জার।দীর্ঘ দিন রাজত্ব চালায় ইন্টারনেট বিশ্বে।

৯০-এর দশকের শেষের দিকে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ইয়াহু মেসেঞ্জার।জল্পনা চলছিল অনেক দিন ধরেই।কারণ, প্রতিযোগিতার বাজারে খাপ খাইয়ে নিতে পারছিল না ইয়াহু মেসেঞ্জার।নতুন প্রযুক্তির সাথে পেরে উঠছিল না ইয়াহু মেসেঞ্জার। ২০০৯ সালে ১২২.৬ মিলিয়ন ইউজার ইয়াহু মেসেঞ্জার ব্যবহারের রেকর্ড গড়ে।

ইয়াহু মেসেঞ্জারের সবচেয়ে সাধারণ বৈশিষ্ট্যগুলির মধ্যে পাবলিক চ্যাট রুম যা ২০১২ সালে সরানো হয়েছিল। এটি গ্রুপ চ্যাটের সবচেয়ে ব্যবহারকারী-বন্ধুত্বপূর্ণ মাধ্যম ছিল এবং এটি ব্যবহারকারীদের অ্যানিমেটেড অক্ষরগুলির সাথে আরামদায়ক করে তোলে।

১৭ জুলাই ২০১৮ থেকে এই অনলাইন মেসেজ অ্যাপ-টি অফলাইন হয়ে যায়।মঙ্গলবার থেকে তা অফিসিয়ালই বন্ধ হয়ে গেল।ইয়াহু মাস ৬ আগেই গ্রাহকদের জানিয়েছিল, প্রতিটি চ্যাট হিস্ট্রি ডাউনলোড করার জন্য।যে সব গ্রাহকরা ডাউনলোড করেননি, তাঁরা আর চ্যাট হিস্ট্রি ডাউনলোড করতে পারবেন না।

বিডি২৪লাইভ/এফটিজে/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: