সাইফুল ইসলাম

ঝালকাঠি প্রতিনিধি

পুলিশ জনগণের ‘বন্ধু’!

২২ জুলাই, ২০১৮ ১৪:০০:২৯

ছবি: প্রতিনিধি

পুলিশ নামটা শুনলেই সাধারণ মানুষেরে মধ্যে একটা বাজে মন্তব্য চলে আসে। আবার অনেকে বড় ধরণের জামেলায় পড়েও পুলিশের শরণাপন্ন হতে চায়না কারণ থানা পুলিশ করলে অর্থ ছাড়া সেবা মিলবে না । ইচ্ছে করলেই সামান্য কিছু বিপদগামী পুলিশ সদস্য মুহুর্তের মধ্যে পরিবর্তন আনতে পারে ওই ধরণের হীন মনমানসিকতার। বর্তমানে অনেক পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে পুলিশের মধ্যে। তারা অনেক অসাধ্য বিষয় অর্থ ছাড়াই সাধন করে দেখাচ্ছে।

থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আরেফিন রাজাপুরে যোগদান করার পর থেকেই সাধারণ জনগণের মুখে শোনা যায় তার গুনের কথা।

গরীব, দুঃখী, বৃদ্ধ সবার সাথে হাসি দিয়ে কথা বলে তাদের মন জয় করেছেন। সাধারণ জনগণকে কোন বিষয়ে পরামার্শ দিয়ে, পেশাদার ডাকাতকে আলোর পথে ফিরিয়ে এনে নিজের অর্থ দিয়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেয়া, কোন মামলায় বাণিজ্য না করে তদন্ত করে সঠিক সমাধান করা, মাদক নিয়ন্ত্রণসহ আরো অনেক সামাজিক কাজ করে জনসাধারণকে সেবা দিয়ে সবার মন থেকে পুলিশের উপর থাকা বাজে ধারণাকে পাল্টে দিচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তার একঝাক সাহসী অফিসার বৃন্দও মানুষের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রাজাপুর থানা পুলিশের এসআই আবু হানিফ এবং এএসআই মাকসুদুর রহমান গত ২ বছর ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধের সমাধান করে দিয়েছেন মাত্র ১ ঘন্টায়।

উপজেলার বাঘড়ী এলাকার মহিলা কলেজ গেট সংলগ্ন হাফেজ আব্দুল সোবাহানের সাথে জমিজমা নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কারণে মৃত্যু বজলুর রহমানের স্ত্রী রেখা বেগমের সাথে দীর্ঘ ২ বছর ধরে ঝগড়া বিবাধ লেগেই থাকতো। চলতো মামলা মোকদ্দমা, কোন সালিশ বৈঠকে হয়নি তার সঠিক সমাধান। গত ৮ জুলাই হাফেজ আব্দুল সোবাহান আদালতে ১৪৪/১৪৫ ধারায় মোকদ্দমা দায়ের করেন। সেই মোকদ্দমার তদন্তবার রাজাপুর থানার এসআই আবু হানিফ এর উপর ন্যস্ত হয়। এসআই আবু হানিফ নোটিশ জারি করে এবং তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেন। তাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত রাখেন।

তিনি কোন প্রকার অর্থের লোভ না করে তার সাথে এএসআই মাকসুদুর রহমান, সার্ভেয়ার ও স্থানীয়দের নিয়ে বাদী, বিবাদী উভয় পক্ষের সামনে ২০ জুলাই নিজ হাতে জমি মেপে সীমানা নির্ধারণ করে দীর্ঘ দিনের বিরোধের সমাধান করেছেন। তার এই কর্মদক্ষতা দেখে এলাকার জনসাধারণ রাজাপুর থানা পুলিশকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। বাদী ও বিবাধীগণ এসআই আবু হানিফ এবং এএসআই মাকসুদুর রহমানকে ধন্যবাদ জনিয়ে বলেন, সকল পুলিশ’রা যদি আপনাদের মত সকল প্রকার লোভ লালসার উর্ধ্বে থেকে কাজ করত তাহলে তারাও সকল প্রকার সম্যাসার সমাধান করতে পারতেন তাহলেই পুলিশ জনগণের ‘বন্ধু’ কথায় নয় কাজে দেখা যেতো।

বিডি২৪লাইভ/এমকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: