‘শহিদুলের জামিন শুনানি’ যা বললেন অ্যাটর্নি জেনারেল

০৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:০৭:২৬

ছবি: সংগৃহীত

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, শহিদুল আলম আন্তর্জাতিকভাবে বহু লোকের সঙ্গে কানেক্টেড। ফেসবুক থেকে যদি একটি লাইভ পোস্ট করা হয় এবং তা যদি স্পর্শকাতর, মিথ্যা ও উস্কানিমূলক বিষয় হয়, তবে এটাকে খাটো করে দেখার কোনো অবকাশ নেই।’

হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ শহিদুল আলমের জামিন শুনানিতে বিব্রতবোধ করার পর মঙ্গলবার এক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন তিনি।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেপ্তার আলোকচিত্রী ও দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা শহিদুল আলমকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গত ৫ আগস্ট রাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এরপর তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ‘উসকানিমূলক ও মিথ্যা’ অপপ্রচারের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

এরপর গত ৬ আগস্ট ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম শহিদুল আলমের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। ১৪ আগস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করা হলে ১১ সেপ্টেম্বর শুনানির জন্য দিন ধার্য করা হয়। এরপর ১৯ আগস্ট শুনানির তারিখ এগোনোর জন্য আবেদন করা হলে আদালত তা গ্রহণ করেননি। এই অবস্থায় ২৬ আগস্ট শহিদুল আলমের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন চাইলে শুনানির জন্য তা গ্রহণ করেননি আদালত।

এরপর ২৮ আগস্ট তার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। ২৯ আগস্ট আবেদনটি শুনানির জন্য আরজি জানানো হয়। সোমবার হাইকোর্টে জামিন আবেদন করা হলে শুনানির জন্য মঙ্গলবার (আজ) দিন ধার্য করেন আদালত।

আজ (৪ সেপ্টেম্বর) জামিন শুনানি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আদালত বিব্রতবোধ করায় শহিদুলের জামিন শুনানি আরও পিছিয়ে যায়।

এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘শহিদুল আলমের মামলাটি আজ শুনানির জন্য তালিকাভুক্ত ছিলো। সকালে যখন তাদের আইনজীবী আবেদনটি শুনানির জন্য মেনশন করেছেন তখন বিচারপতি দু’জনের মধ্যে একজন বিব্রতবোধ করেছেন। ফলে মামলাটি আজকে শুনানি হয়নি। এ মামলাটি ও মামলার নথিপত্র এখন প্রধান বিচারপতির কাছে যাবে। প্রধান বিচারপতি আবার অন্য কোনো বেঞ্চে আবেদনটি শুনানির জন্য নির্ধারণ করবেন।’

তিনি বলেন, ‘আমি এ মামলায় শুনানি করতে চেয়েছিলাম। এজন্য প্রস্তুতিও নিয়েছিলাম। কিন্তু আদালত শুনলেন না। তাই আমার বক্তব্যও উপস্থাপন করা হয়নি।’

এদিকে শুনানিতে হাইকোর্ট বেঞ্চের বিব্রত হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বিব্রতের বিষয়ে আদালত কিছুই বলেননি। আমাদের কোর্টের মেটার অব প্রাকটিস অনুসারে বিব্রতের কারণ কখনো বলা হয় না।’

‘এটা ঠিক না। আমি যা পড়ে দেখলাম এখানে একটি লোক আন্তর্জাতিকভাবে বহু লোকের সঙ্গে কানেক্টেড। তার ফেইসবুক থেকে যদি একটি লাইভ পোষ্ট করা হয় এবং যেখানে বিষয়টি স্পর্শকাতর, মিথ্যা ও উস্কানিমূলক বিষয় হয় তবে এটাকে তো খাটো করে দেখার কোনো অবকাশ নেই।’ শহিদুল আলমকে বিনা কারণে আটকে রাখা হয়েছে বলে তার আইনজীবীরা যে দাবি করার বিষয়ে তিনি এ বক্তব্য দেন।

বিডি২৪লাইভ/এএইচ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: