প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

‘কারাগারের ইট’ খুলে নেয়ার ঘোষণা দিল বিএনপি নেতা!

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৫:৫২:০০

ছবিঃ সংগৃহীত

দুর্নীতি মামলায় সাজা পাওয়ার পর বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া যে কারাগারে বন্দী আছেন, তাকে মুক্তি না দিলে সেই কারাগারের ইট খুলে নেয়ার ঘোষণা এসেছে ঢাকায় বিএনপি আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে।

সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) খালেদার মুক্তি ও তার চিকিৎসার দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু সরকারের উদ্দেশে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, নইলে দেশের জনগণ সেই কারাগারের প্রতিটি ইট খুলে নিবে।’

প্রধানমন্ত্রীকে শামসুজ্জান দুদু বলেন, ‘বেগম জিয়াকে মুক্তি দিলে দেশের রাজনীতির পরিস্থিতি ভালো হবে। তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করলে জনগণ খুশি হবে। আর তাকে মুক্তি না দিলে দেশে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে তার দায়ভার সম্পূর্ণভাবে শেখ হাসিনাকে নিতে হবে।’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, ‘এখন দাবি একটাই বেগম জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। এখন শুধু দাবি করছি। কিন্তু কারাগারে প্রতিটি ইট যেদিন দেশের জনগণ খুলে নিবে সেটি আপনি (শেখ হাসিনা) এখনও বুঝতে পারেন নাই।’

কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘মিথ্যা, বানোয়াট মামলায় খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। সে মামলায় খালেদা জিয়াকে জামিন দেওয়ার পরও তাকে মুক্তি দেওয়া হয়নি। তার একটা উদ্দেশ্য, খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখে নির্বাচন করে ৫ জানুয়ারির মতো ক্ষমতা দখল করা। কিন্তু দেশের মানুষ খালেদা জিয়া, বিএনপি ও ২০ দল ছাড়া কোনো নির্বাচন হতে দেবে না।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে একটি জাতীয় ঐক্য গঠন করে সরকারে পতন নিশ্চিত করা হবে। সেজন্য সবাইকে প্রস্তুতি নিতে হবে। আন্দোলন ছাড়া সরকারের অপশাসন থেকে মুক্তির কোনো বিকল্প নেই।’

মানববন্ধনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেন, ‘আমরা স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, খালেদা জিয়াকে বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে হবে। আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করেই গণতন্ত্রের লড়াই এগিয়ে নিয়ে সব দাবি আদায় করে নির্বাচনে যাব। তাকে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী করবো। ধোঁকাবাজি নির্বাচন করতে দেব না।’

মঈন খান বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন শুধু এদেশের নাগরিক নন, তিনি এদেশের তিন তিন বারের প্রধানমন্ত্রী, অথচ দু:খের বিষয় তাকে জেলে রেখে ক্রমান্বয়ে নিঃশেষ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে, যা সম্পূর্ণ সংবিধানের বরখেলাপ।’

খালেদার জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি আয়োজিত এই মানববন্ধন শুরু হয় বেলা ১১টায়। ঘণ্টাব্যাপী চলা এই মানববন্ধনে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের শত শত নেতাকর্মী অংশ নেয়। মানববন্ধনে নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়া নিঃশর্ত মুক্তি চান।

বিডি২৪লাইভ/ওয়াইএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: