দিলওয়ার খান

বিশেষ প্রতিনিধি, নেত্রোকোনা

নেত্রকোনায় 

শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজ স্থাপন, খুশির বন্যা 

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:২৬:১৭

ছবি: প্রতিনিধি

নেত্রকোনা জেলায় শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজ স্থাপন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে দিনব্যাপী আনন্দ উৎসব করেছে নেত্রকোনাবাসী। প্রাণের শহর নেত্রকোনায় নেমেছে খুশির বন্যা। গারো পাহাড়ের পাদদেশে মহুয়া মলুয়ার শহরে আজ আনন্দ উচ্ছাস, জেগেছে নতুন প্রত্যয়। নতুন আশায় বুক বাঁধছেন নেত্রকোনাবাসী।

উৎসব উদযাপন পরির্ষদ, নেত্রকোনার উদ্যোগে রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পুরাতন কালেক্টরেট উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে এই আনন্দ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল থেকেই সকল সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে পুরাতন কালেক্টরেট উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে জড়ো হতে থাকে। এ সময় মঞ্চে চলতে থাকে গণজাগরণী গান।

সকাল ১১টায় শুরু হয় বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা। আনন্দ শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়। আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ গ্রহণ করেন উৎসব উদযাপন পর্ষদের আহবায়ক জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. রফিক উল্লাহ খান, নেত্রকোনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ এ কে এম সাদেকুল আজম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মতিয়র রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আশরাফ আলী খান খসরু।

আরো উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র আলহাজ নজরুল ইসলাম খান, উৎসব উদযাপন পর্ষদের সদস্য সচিব জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক নূর খান মিঠু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুল কাদের শাহজাহান, সাধারণ সম্পাদক জি এম খান পাঠান বিমল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নূরুল আমীন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান খান রতন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পিপি এডভোকেট ইফতেখার উদ্দিন মাসুদ, অধ্যাপক ভজন সরকার, শামছুর রহমান ভিপি লিটন, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি কেশব রঞ্জন সরকার ও রেড ক্রিসেন্টের সেক্রেটারী গাজী মোজাম্মেল হোসেন টুকু প্রমুখ।

পরে নেত্রকোনা জেলায় বর্তমান সরকারের বাস্তবায়িত ও বাস্তবায়নাধীন নানা উন্নয়ন প্রকল্প সমূহ জনগণের সামনে তুলে ধরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

বিডি২৪লাইভ/এমকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: