আরমান হোসেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

‘ইভিএম’ বিদেশে রপ্তানির পরিকল্পনা

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৩৮:০০

ছবিঃ প্রতীকী।

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) বিদেশে রপ্তানির পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন। এ ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি

জানা গেছে, বিদেশ থেকে কিছু যন্ত্র আমদানি করে দেশীয় জনবল দিয়ে ইভিএম প্রস্তুত করে বিদেশে রপ্তানি করা হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র ও নিবন্ধন অণুবিভাগের (এনআইডি) মহাপরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বিডি২৪লাইভকে বলেন, ‘পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে ইভিএম মেশিনের যন্ত্রপাতি আমদানি করবে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি। এর পর ওই ফ্যাক্টরি যন্ত্রগুলোকে সেট করে নির্বাচন কমিশনের কাছে হস্তান্তর করবে।’

‘যেমন, যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিংগার প্রিন্ট আনা হচ্ছে। অ্যাপল কোম্পানির কাছ থেকে ইভিএমের মনিটর আমদানি করা হচ্ছে। এ ছাড়া আরও অনেক দেশ থেকে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি আমদানি করা হচ্ছে। তবে এই বিষয়ে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি বিস্তারিত জানে। এগুলোর সঙ্গে চুক্তিও করছে তারা। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশের চাহিদা মেটার পর ইভিএম বিদেশে রপ্তানি করা হবে। আমাদের ইভিএমের সিকিউরিটি দেখে ভারতসহ অনেক দেশ প্রশংসা করেছে।’

মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘ইভিএমে কোনো ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক কানেকটিভিটি নেই। সুতরাং এখানে পৃথিবীর কোনো হ্যাকার হ্যাক করতে পারবে না। ইসির ভারচুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) দ্বারা এটা নিয়ন্ত্রণ করা হবে। পৃথিবীর অধিকাংশ দেশে যে ইভিএম ব্যবহার করা হয় সেখানে কিন্তু ফিংগার প্রিন্টের সিস্টেম নেই। এমনকি আইরিশ নেই। কিন্তু আমরা এখানে আইরিশ সংযুক্ত করার চেষ্টা করছি। এছাড়া আরও অনেক সুবিধা আমাদের ইভিএমে থাকছে যা অন্য দেশের ব্যবহৃত ইভিএমে নেই।’

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে বিএনপিসহ অন্যান্য দলের আপত্তি থাকা সত্ত্বেও গত মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) তিন হাজার ৮২৫ কোটি টাকায় দেড় লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়।

নির্বাচনী ব্যবস্থায় আরও স্বচ্ছতা আনার লক্ষ্যে ইভিএম ক্রয়, সংরক্ষণ ও ব্যবহার শীর্ষক প্রকল্পটি ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে।

বিডি২৪লাইভ/ওয়াইএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: