‘হাতের ওপরই মারা যান বাবা, চিকিৎসা করাতে পারিনি’

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:১৮:০০

ছবি : সংগৃহীত

বিরাট কোহলি নামটা সবারই অতি পরিচিত। এ নামে যেন গড়াগড়ি খায় সাফল্য। ব্যর্থতা বলে যেন কিছুই নেই উজ্জ্বল ক্যারিয়ারে। বিরাটের অভাব নেই। কিন্তু একটা কষ্ট মনের মধ্যে রয়েই গেছে তার-বাবার মৃত্যু। বাবাকে মৃত্যুর সময় চিকিৎসা করাতে পারেননি তারা।

১৮ আগস্ট, ২০০৮ তারিখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন কোহলি। এক দিবসীয় ক্রিকেটে নিয়মিত অংশগ্রহণ করা স্বত্বেও তার টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে ২০১১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে কিংস্টনে।

কিন্তু ২০০৬ সালের দিকে যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়নি কোহলির তখন এক ভয়াবহ মূহুর্তের সম্মুখীন হতে হয় তাকে।

দিনের খেলা শেষে বাসায় ফেরেন কোহলি। পরের দিন আবার মাঠে নামবেন। ওইদিনই রাতে জীবনের সবচেয়ে কষ্টের মূহুর্তটা চলে আসে কোহলির। রাত তিনটার দিকে পরপারে পারি জমান তার বাবা প্রেম কোহলি, তাকে যে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে সেই সুযোগটিও হয়নি।

এক সাক্ষাতকারে বাবার মৃত্যুর সেই কষ্টদায়ক স্মৃতিটির কথা বলছিলেন কোহলি। ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘আমার হাতের ওপরই মারা যান বাবা। রাত তখন তিনটা। বাবাকে কোনো চিকিৎসা করাতে পারিনি।’

কোহলির বাবার ইচ্ছে ছিল, তার ছেলে বড় ক্রিকেটার হবে। বাবার সেই ইচ্ছে পূরণ হয়েছে। তবে ছেলেকে সেই খ্যাতির শিখরে দেখা হয়নি বাবার। কষ্টটা তাই সারাজীবনই বয়ে বেড়াতে হবে বর্তমানে বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা ব্যাটসম্যানকে।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: