এ আর রাশেদ

ইবি প্রতিনিধি

খাবারের মান নিয়ে ইবি কনজুমার ইয়ুথের মতবিনিময় সভা

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৭:০০:০০

ছবি: প্রতিনিধি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) খাবারের মান নিয়ে প্রশাসন, ডাইনিং ম্যানেজার এবং দোকানদারদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছে কনজুমার ইয়ুথ বাংলাদেশ (সিওয়াইবি) ইবি শাখা।

খাবারের মান উন্নয়ন এবং সকল দোকানে একই মূল্য নির্ধারণের লক্ষ্যে সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৩টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রিয় ক্যাফেটেরিয়ায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জানা জায়, গত ১৩ আগস্ট সিওয়াবি’র উদ্যোগে বিশ্ববদ্যিালয়ের প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী খাবারের মান ও মূল্য নির্ধারণের দাবিতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করে। পরে স্মারকলিপিসহ ওই আবেদন উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর কাছে জমা দেয় শাখা নেতৃবৃন্দ।

সোমবার একই দাবির প্রেক্ষিতে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরীণ সকল দোকানদারদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করে কনজুমার ইয়ুথের ইবি শাখা। এতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ তুলে ধরেন কনজুমার ইয়ুথের ইবি শাখা সভাপতি ইমরান শুভ্র ও সাধারণ সম্পাদক সুমাইয়া পারভিন।

এ সময় তারা পঁচা সবজি, পাম ও পুরাতন তেলে রান্না, বাসি খাবার পরিবেশন, ফ্রিজিং খাবার, ডিমসহ অন্যান্য খাবারের অতিরিক্ত মূল্যসহ নানা সমস্যার কথা জানান। পরে এসব দাবির প্রেক্ষিতে আলোচনা রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম, সিওয়াইবির উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মেহের আলী, ড. রশিদুজ্জামান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের এস্টেট অফিসের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমুখ।

পরে শিক্ষার্থীদের দাবি বাস্তবায়নে ডাইনিং ম্যানেজার ও দোকানদাররা তাদের সমস্যার কথা তুলে ধরেন প্রশাসনের কাছে। এ সময় তারা নিয়মিত সাবসিডি না পাওয়া, ফাও খাওয়া, কম টাকা পরিশোধ এবং বাকী খাওয়ায় সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে পারেন না বলে জানান।

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের সর্বোচ্চ সহয়তার আশ্বাস দেয় প্রশাসন। আগামী ৩০ জুন হল ডাইনিংগুলো একত্রে এবং বাইরের খাবার দোকানগুলো একত্রে পরামর্শ করে অভিন্ন মূল্য তালিকা দেবার নির্দেশ দেন ছাত্র উপদেষ্টা। এরপর শিক্ষার্থীদের দাবি ও তাদের মূল্য তালিকা যাচাই বাছাই করে অভিন্ন মূল্য তালিকা প্রণয়ন করবে প্রশাসন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের স্বাস্থসম্মত খাবার নিশ্চিতের জন্য প্রশাসন থেকে যে ধরনের সহায়তা প্রয়োজন আমরা তা করবো। আপনারা মানসম্মত খাবার পরিবেশন করুন।’

ছাত্র উপদেষ্ট অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের সাধ্যমত সর্বোচ্চ সুবিধাটুকু আমরা নিশ্চিত করবো। শিক্ষার্থীদের স্বার্থে আগামী ৩০ তারিখে আপনারা একত্রে অভিন্ন মূল্য তালিকা করে আমাদের কাছে জমা দিন। আমরা সর্বোচ্চ প্রশাসনের নির্দেশনা মোতাবেক সকলের জন্য অভিন্ন মূল্য তালিকা প্রণয়ন করবো।’

সভায় সিওয়াইবির কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য সদস্য ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হল এবং হোটেল মালিক উপস্থিত ছিলেন।

বিডি২৪লাইভ/এমকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: