সিংহাসন হারালেন মেসি-রোনালদো!

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৯:৫৩:৫৭

ছবি: সংগৃহীত

মেসি-রোনালদোর সাম্রাজ্য শেষ পর্যন্ত দখল হয়ে গেল। আর এ দখলদারের নাম লুকা মদ্রিচ। ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দলের হয়ে ২০০৬ সালের মার্চে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মদ্রিচের অভিষেক হয়। আর সেই আর্জেন্টিনার তারকা মেসি সাম্রাজ্যটাই এবার দখন করে নিলেন তিনি।

এবারে ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কার গতবারের সেরা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো যে পাচ্ছেন না অনেটা নিশ্চিতই ছিল। আর বার্সার তারকা মেসিতো সেরা তিনই ছিলেন না। যে কারণে বর্ষসেরা পুরস্কার পাওয়ার তালিকায় ছিল লুকা মদ্রিচ ও মোহামেদ সালাহ। শেষ পর্যন্ত সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ২০১৮ সালের ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার ‘দ্য বেস্ট’ উঠেছে রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েট তারকা লুকা মদ্রিচের হাতে।

এর আগে এবারের রাশিয়া বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গোল্ডেন বল পুরস্কার লাভ করেন। এরপর ২০১৭-২০১৮ উয়েফা বর্ষসেরা পুরুষ খেলোয়াড় পুরস্কার লাভ করেন লুকা মদ্রিচ।

যদিও এর আগে আলোচনার আড়ালেই ছিল লুকা মদ্রিচ। কিন্তু রাশিয়ার বিশ্বকাপ বদলে দিয়েছে অনেক কিছু। অসামান্য পারফরম্যান্সে ৩৩ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার নিজ দেশ ক্রোয়েশিয়াকে তুলেছেন বিশ্বকাপের ফাইনালে। জিতেছেন টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারও। এবার জয় করলেন ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কার।

যার মধ্যদিয়ে টানা দশ বছর ধরে মেসি-রোনালদোর সাম্রাজ্যে হানা দিলেন মদ্রিচ।

ফিফা ১৯৯১ সাল বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার চালু করে। এরপর ২০১০ সালে ফ্রান্সের ব্যালন ডি’অরের সাথে যুক্ত হয়ে ‘ফিফা ব্যালন ডি’অর’ পুরস্কার দিয়ে আসছিল তারা। তবে ২০১৬ সালে আবার আলাদা হয়ে নতুন নামে বর্ষসেরা পুরস্কার চালু করে ফিফা। যার নাম হয় ‘দ্য বেস্ট।’

ফুটবলারের পুরস্কার সেরা এই পুরস্কারটি প্রথম দুই বছর ওঠে পর্তুগিজ তারকা রোনালদো হাতে। তৃতীয়বারে এসে হাত বদল। তবে সেটা রিয়ালের ঘরেই থেকে গেল।

এদিকে পুরুষ দলের সেরা কোচ নির্বাচিত হয়েছেন ফ্রান্সের দিদিয়ের দেশম। আর বর্ষসেরা গোলের জন্য পুসকাস অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন মিসরীয় তারকা মোহাম্মদ সালাহ।

লুকা মদ্রিচ

লুকা মদ্রিচ ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দলের হয়ে ২০০৬ সালের মার্চে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মদ্রিচের অভিষেক হয়। তিনি প্রথম আন্তর্জাতিক গোল করেন ইতালির বিপক্ষে। এরপর উয়েফা ইউরো ২০০৮ আসরে তিনি আসরের সেরা দলে অন্তর্ভুক্ত হন।

তিনি দ্বিতীয় ক্রোয়েশিয়ান হিসেবে এই সম্মান লাভ করেন। ২০১৫ সালে প্রথম ক্রোয়েশিয়ান খেলোয়াড় হিসেবে ফিফা বিশ্ব একাদশে অন্তর্ভুক্ত হন। ২০১৬ ও ২০১৭ সালেও এই একাদশে তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয় এবং ২০১৬ ও ২০১৭ সালে উয়েফা বর্ষসেরা দলেও তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়।

লুকা মদ্রিচ ছয়বার ক্রোয়েশীয় বর্ষসেরা ফুটবলারের খ্যাতি অর্জন করেন। তিনি ডেভর সুকারের সাথে যৌথভাবে এই পুরস্কারের সর্বাধিক বার বিজেতা। ইভান রাকিতিচ ও মারিও মাঞ্জুকিচের সাথে তিনি ক্রোয়েশিয়ার "দ্বিতীয় সোনালি প্রজন্ম"-এর একজন এবং এই সময়ে তিনি ক্রোয়েশিয়ার হয়ে সবকয়টি বড় আসরে অংশগ্রহণ করেছেন।

যার মধ্যে রয়েছে ২০০৬ ফিফা বিশ্বকাপ, উয়েফা ইউরো ২০০৮, উয়েফা ইউরো ২০১২, ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ, উয়েফা ইউরো ২০১৬ এবং ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ। তার প্রথম দুই বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়ার পর তিনি ক্রোয়েশিয়া দলকে ২০১৮ বিশ্বকাপ ফাইনালে নিয়ে যাওয়ার পথে নেতৃত্ব দেন। ফাইনাল খেলায় ফ্রান্সের কাছে হেরে তার দল রানার-আপ হয় এবং তিনি এ আসরের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গোল্ডেন বল পুরস্কার লাভ করেন। এরপর ২০১৭-২০১৮ উয়েফা বর্ষসেরা পুরুষ খেলোয়াড় পুরস্কার লাভ করেন লুকা মদ্রিচ। আর সর্বশেষ ২০১৮ সালের ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার ‘দ্য বেস্ট’ উঠেছে রিয়াল মাদ্রিদের এ তারকার হাতে।

ফিফার বর্ষসেরা একাদশে রয়েছেন যারা:

ডেভিড ডি গিয়া (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), দানি আলভেজ (পিএসজি), রাফায়েল ভারান (রিয়াল মাদ্রিদ), সার্জিও রামোস (রিয়াল মাদ্রিদ), মার্সেলো (রিয়াল মাদ্রিদ), লুকা মদরিচ (রিয়াল মাদ্রিদ), এনগোলো কান্তে (চেলসি), ইডেন হ্যাজার্ড (চেলসি), কিলিয়ান এমবাপ্পে (পিএসজি), লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা), ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো (রিয়াল মাদ্রিদ, বর্তমানে জুভেন্টাস)।

বিডি২৪লাইভ/এএইচ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: