প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

শিক্ষকের ধর্ষণে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা!

১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ১০:৩৩:০০

ছবি : প্রতীকী

বয়স মাত্র ১০ বছর। মেয়েটি স্থানীয় একটি স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। কিন্তু, এতো অল্প বয়সেই মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। 

অভিযোগ উঠেছে, এক লম্পট কলেজ শিক্ষকের যৌন লালসার শিকার হয়ে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া নাবালিকা মেয়েটি। সামনে তার সমাপনি পরীক্ষা থাকলেও লোকলজ্জা ও অসুস্থতার কারণে মেয়েটির স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

নরসিংদীর বেলাব উপজেলার আমলাব ইউনিয়নের একটি গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। 

নির্যাতিত ওই ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, একই গ্রামের গাজিউল রহমান দুলাল নামের এক কলেজ শিক্ষক ৬ মাস আগে ওই শিশুটিকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর ভয়ে পরিবারের কাউকে কিছু জানায় নি মেয়েটি। কিন্তু, বর্তমানে তার শারীরিক পরিবর্তন ধরা পড়ায় সব কথা খুলে বলে সবাইকে।

ভুক্তভোগী মেয়েটির মা জানান, ৬ মাস আগে শিবপুর উপজেলার কামারটেক সবুজ পাহাড় অনার্স কলেজের প্রভাষক দুলাল দিন-দুপুরে ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে তার মুখ ও হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটিকে হুমকি দিয়ে বলা হয়, এ ঘটনা কাউকে জানালে তার বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দেওয়া এবং তার বড় ভাইকে মেরে ফেলা হবে। 

নির্যাতনের শিকার মেয়েটি জানায়, ভয়ে এতোদিন সে কাউকে এ ঘটনা সম্পর্কে কিছু বলেনি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই কলেজ শিক্ষকের বক্তব্য জানতে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায় নি। এ সময় তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত দুলাল বিবাহিত এবং তার একটি সন্তান রয়েছে। এ ঘটনা জানাজানির পর থেকে ওই শিক্ষক পলাতক। তবে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ইতোমধ্যে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে লম্পট ওই শিক্ষকের বিচারের
দাবি উঠেছে। 

ধর্ষণের শিকার মেয়েটির মা কান্নাজড়িত বলেন, ‘আমার এই শিশুর উপর যে নির্যাতন করেছে তার ফাঁসি চাই।’

এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর স্কুলের প্রধান শিক্ষকও অভিযুক্ত দুলালের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন। 

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা জানান, মেয়েটির পরিবার তার কাছে এসেছিল। তিনি থানায় বলে দিয়েছেন মামলা নেয়ার জন্য। এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার হবে বলেও জানান তিনি। 

এ বিষয়ে বেলাব থানার ওসি জাবেদ মাহমুদ বলেন, আলট্রাসনোগ্রাম রিপোর্ট হাতে পেলেই মামলা দায়ের করা হবে।

বিডি২৪লাইভ/টিএএফ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: