দিলওয়ার খান

বিশেষ প্রতিনিধি, নেত্রোকোনা

স্ত্রী হত্যায় স্বামী গ্রেফতার

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:৩৮:৪৫

ছবি: প্রতিনিধি

নেত্রকোনা সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউনিয়নের দাপুনিয়া গ্রামের ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার হওয়া মল্লিকা বেগম (১৮) হত্যাকাণ্ডের মূলহোতা তার পাষণ্ড স্বামী মাদকাসক্ত হৃদয় হোসেন জুয়েলকে (২২) নেত্রকোনা মডেল থানার পুলিশ তিন দিনের মধ্যে গ্রেফতার এবং হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হয়েছেন।

নেত্রকোনা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে মঙ্গলবার দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এস পি পদে সদ্য পদোন্নতি প্রাপ্ত) এস এম আশরাফুল আলম জানান, নেত্রকোনা সদর উপজেলার কাইলাটী ইউনিয়নের চাপান নোয়াদার গ্রামের মো. আব্দুল মজিদ ওরফে মতির ছেলে হৃদয় হোসেন জুয়েল গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি ভাঙ্গারী দোকানে কাজ করতো। সেখানে ৪ বছর পূর্বে ময়মনসিংহ জেলার ধোবাউড়া উপজেলার ভেদীকুড়া গ্রামের আবদুল মান্নানের মেয়ে গার্মেন্টস কর্মী মল্লিকার সঙ্গে পরিচয় ও বিয়ে হয়। এর আগেও জুয়েল আরো দুটি বিয়ে করেছিল। বিয়ের পর মাদকাসক্ত হয়ে পড়ায় কাজ কর্ম ছেড়ে তৃতীয় বৌয়ের রোজগারের টাকায় নেশা করতো। সংসারের অভাব অনটন ও দাম্পত্য কলহের জের ধরে মল্লিকা স্বামী জুয়েলের সঙ্গে রাগ করে গত ১৩ নভেম্বর দক্ষিণ বিশিউড়ায় তার নানা বাড়িতে চলে আসে।

খবর পেয়ে জুয়েল গত ১৬ নভেম্বর দক্ষিণ বিশিউড়ায় এসে রাতে স্ত্রীকে বুঝানোর কথা বলে বাড়ী থেকে বের প্রায় এক মাইল দূরে একটি ধান ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পুলিশ পরদিন তার লাশ উদ্ধার করে। লাশের কাছে একটি জন্ম সনদ দেখে পুলিশ লাশের পরিচয় সনাক্ত করে এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে ঘাতক জুয়েলের অবস্থান সনাক্ত করে গত সোমবার রাতে নরসিংদীর শিবপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সংসারের অভাব অনটন ও দাম্পত্য কলহের কারণে স্ত্রীকে খুন করেছে বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছে। প্রেস ব্রিফিংয়ে নেত্রকোনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফখরুজ্জামান জুয়েল ও নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. বোরহান উদ্দিন খান উপস্থিত ছিলেন।

বিডি২৪লাইভ/এমকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: