ফরিদুল ইসলাম রঞ্জু

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

শিশু ধর্ষণের বিচার দুইটা জুতার বাড়ি!

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৯:৪৮:০৫

ছবি: প্রতীকী

ঠাকুরগাঁওয়ে পাঁচ বছরের শিশু ধর্ষণের ঘটনায় অপরাধীকে দুইটা জুতার বাড়ি মেরে বিচার কাজ সম্পন্ন করেছে স্থানীয় কর্তা ব্যক্তিরা। এটা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার গড়েয়া ইউনিয়নের খামার ভোপলা গ্রামের প্রভাবশালী আব্দুস সালাম (৬০),একই গ্রামের মোহাম্মদ হোসেন ও হেনার পাঁচ বছরের শিশু কন্যাকে শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে চকলেটের লোভ দেখিয়ে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। এসময় শিশুটিকে নরপশু সালাম ধর্ষণ করে ও পাশবিক কায়দায় তার গাল কামড়ে রক্তাক্ত করে ফেলে ।

শিশুটি অনেক কষ্টে সেখান থেকে বেরিয়ে এসে তার বাবা-মাকে জানায়। পরিবার থেকে চিকিৎসা করাতে শিশুটিকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তির জন্য রওয়ানা হয়। কিন্তু প্রভাবশালী আব্দুস সালাম জানাজানি হবার ভয়ে তাদের ঠাকুরগাঁও আসতে বাধা দেয়। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে, স্থানীয় মেম্বার ও গ্রাম্য মোড়লরা মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে বিচারে বসে। বিচারে আব্দুস সালামকে দুই গালে দুইটা জুতার বাড়ি দিয়ে বিচার কাজ সম্পন্ন করে।

এদিকে অতিশয় গরীব পরিবারটি অনিশ্চয়তা পড়ে কেঁদে কেঁদে অস্থির ধর্ষণের শিকার শিশুটির বিচার না পেয়ে। জানাগেছে, শিশুটিকে গ্রাম্য চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ধর্ষক সালাম আর্থিক কোন সহযোগিতাও করেনি শিশুটির চিকিৎসার জন্য।

এ ব্যাপারে গড়েয়া ইউপি চেয়ারম্যান রেদওয়ানুল ইসলাম রেদো শাহ'র কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি আধা ঘন্টা পর কথা বলবেন বলে জানালেও আর যোগাযোগ করেননি।

বিষয়টি নিয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে তিনি এখনও কিছু জানেননা। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানান।

বিডি২৪লাইভ/এমকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: