প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

আরমান হোসেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আপিলের দ্বিতীয় দিন, প্রার্থিতা ফিরে পেলেন যারা-পেলেন না যারা

০৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৩৭:০৪

ছবিঃ সংগৃহীত

মনোনয়নপত্র আপিল আবেদনের দ্বিতীয় দিনের শুনানি শুরু হয়েছে। শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) ১০টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন ভবনে এই শুনানি শুরু হয়।

বেলা ১১টা পর্যন্ত জাতীয় পার্টির (এরশাদ) সাবেক মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারসহ ১০ জনের আপিল আবেদন অবৈধ ঘোষণা করে আদালত। আর বৈধতা পায় ১৫ মনোনয়ন এবং দুটি স্থগিত রেখে আদালত।

৬ ডিসেম্বর শুনানির প্রথম দিন শুনানি হয় ১ থেকে ১৬০টি আপিল আবেদনের। শুনানি শেষে ৮০ প্রার্থী বৈধ আর অবৈধ হয় ৭৬ প্রার্থীর আবেদন ও স্থগিত করে বাকি চার প্রার্থীর আপিল।

শুনানির দ্বিতীয় দিনে ১৬১ থেকে ৩১০ পর্যন্ত আপিল আবেদনের শুনানির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করবে কমিশন। আর তৃতীয় দিন (৮ ডিসেম্বর) ৩১১ থেকে ৫৪৩ নম্বর আবেদন নিষ্পত্তি করা হবে।

জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত তিন হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে। ২ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করে রিটার্নিং কর্মকর্তারা। এরপর ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র ফিরে পেতে আপিল আবেদন করেন বাতিল হওয়া প্রার্থীরা।

দ্বিতীয় দিন মনোনয়নের বৈধতা পেলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ মো. মুসলিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম-৮-এর হাসান মাহমুদ চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৭ এর মো. আবু আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ এর মো. গিয়াস উদ্দিন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ এর আবদুল খালেক, কুমিল্লা-১০ এর মো. শাহজাহান মজুমদার, চাঁদপুর-৫ এর খোরশেদ আলম খুশু, বরিশাল-২ এর একে ফাইয়াজুল হক, পটুয়াখালী-১ এর মো. আবদুর রশিদ, বরিশাল-১ এর মো. বাদশা মিয়া, বরগুনা-১ এর মো. মতিয়ার রহমান তালুকদার, ভোলা-১ এর গোলাম নবী আলমগীর, বরিশাল-২ এর মাসুদ পারভেজ ও ঝালকাঠি-১ এর বজলুল হক হারুণ (তার মনোনয়ন বাতিল করতে আপিল করা হয়। শুনানিতে সেই আপিল খারিজ হয়ে যায়)।

আপিলের পরও অবৈধ হওয়া প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন কুমিল্লা-১ এর মো. আলতাফ হোসাইন, চট্টগ্রাম-৬ এর সামির কাদের চৌধুরী, ফেনী-৩ এর মো. আবদুল লতিফজান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ এর মো. শাহজাহান, কুমিল্লা-২ এর মো. আব্দুল মজিদ, বরিশাল-৬ এর ওসমান হোসেইন, পিরোজপুর-৩ এর ডা. সুধীর রঞ্জন বিশ্বাস, ঝালকাঠি-১ এর মো. মনিরুজ্জামান, পটুয়াখালী-১ এর এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার ও পটুয়াখালী-২ এর মোহাম্মদ মিজানুর রহমান খান।

স্থগিত আপিল আবেদনের মধ্যে রয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ এর মো. মেহেদী হাসান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ এর মো. ছাইফুল্লাহ (হুমায়ুন মিয়া)।

শুনানিতে উপস্থিত রয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা, কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী ও ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

বিডি২৪লাইভ/এআই/এসএস

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: