সিলেট-৬ আসন

সরে দাঁড়ালেন শমসের মবিন

১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ , ০৭:৪২:০০

শমসের মবিন চৌধুরী। ফাইল ফটো

সিলেট-৬ আসনে বিকল্পধারার প্রার্থী ও প্রেসিডিয়াম সদস্য শমসের মবিন চৌধুরী একই আসনে মহাজোটের প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাহিদকে সমর্থন করে নিজের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা দিয়েছেন। রবিবার (১৬ ডিসেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টায় বারিধারায় বি. চৌধুরীর বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই  ঘোষণা করেন।

তিনি মহাজোট থেকে মনোনয়ন না পেয়ে বিকল্পধারার প্রার্থী হয়েছিলেন। দলের প্রতীক ‘কুলা’ নিয়ে নির্বাচনী মাঠে ছিলেন তিনি। এ আসনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের পাশাপাশি মহাজোটের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন জোটের শরিক বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য শমসের মবিন চৌধুরী। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন তিনি।

জোটের মনোনয়ন না পেয়ে তিনি বিকল্পধারার প্রার্থী হন। দলীয় প্রতীক কুলা নিয়ে তিনি নেমেছিলেন গণসংযোগেও। তিনি গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারের অলি-গলি চষে বেড়ান কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে। দুই উপজেলায় করানো হয় মাইকিং।

তিনি নির্বাচনী মাঠে থাকার ফলে মহাজোট প্রার্থী শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ অনেকটা পড়েন বেকায়দায়। অবশেষে নৌকা প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাহিদকে সমর্থন দিয়ে সরে পড়লেন তিনি।

এ বিষয়ে শমসের মবিন চৌধুরী বলেন, যদিও প্রার্থিতা প্রত্যাহারে নির্বাচন কমিশনের বেধে দেওয়া সময়সীমা আগেই শেষ হয়েছে, তবুও আমি বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানাবো। আমার দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সিলেট-৬ আসনে মহাজোটের প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাহিদের সমর্থনে আমি আমার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিচ্ছি।

শমসের মবিন অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে সর্বক্ষেত্রে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার আহ্বান জানান।

শমসের মবিন ২০১৫ সালে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় রাজনীতি থেকে সরে গিয়েছিলেন। নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হওয়ার আগ দিয়ে গত ২৬ অক্টোবর তিনি বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে যোগ দেন। পরে সিলেট-৬ আসন থেকে তিনি দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ করেন। স্থানীয় রিটার্নিং অফিস থেকে দলীয় ‘কুলা’ প্রতীকও বরাদ্দ পেয়েছিলেন তিনি।

আসন্ন নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটের সঙ্গে রয়েছে বিকল্পধারা। এই জোট থেকে নৌকা প্রতীকে ওই আসন থেকে লড়ছেন বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: