প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘বিভাগীয় পর্যায়ে ক্যানসার ও কিডনি হাসপাতাল হবে’

১৬ জানুয়ারি ২০১৯ , ০৩:২৫:০০

ছবি : প্রতিনিধি

দেশের বিভাগীয় পর্যায়ে একশ’ বেডের ক্যানসার হাসপাতাল ও বিভাগ-জেলা পর্যায়ে হাসাপাতালে ১০ বেডের কিডনি হাসপাতাল করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন।

আজ বুধবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালায়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালায়ের ‘১০০ দিনের কর্মসূচি’ ঘোষণা করেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, নতুন প্রকল্প সমূহের ডিপিপি প্রস্তুত হয়েছে সে সকল প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের পর পরিকল্পনা কমিশনে প্রেরণ করা হবে। ঢাকা মেডিকেল কলেজে (ঢামেক) সবচেয়ে বড় হাপাতাল হবে। পাঁচ হাজার শয্যা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক হাসপাতাল। তিন মাসের মধ্যে এর ডিজাইনিংয়ের কাজ শুরু হবে। আমরা একনেকে বিষয়গুলো অনুমোদন করতে পারব বলে আশা করছি।

মন্ত্রণলায়ের সকল বিভাগে শুদ্ধি অভিযান চলবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অপরাধ যার যার নিজস্ব বিষয়। সরকার এতে কাউকে ছাড় দেবে না। বর্তমান সরকারের মেয়াদ মাত্র শুরু হলো। দ্রুতই স্বাস্থ্য বিভাগের সব ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে।

সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষিত কার্যক্রমের ভিত্তিতে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সেবা সপ্তাহ উদযাপন করা হবে। মন্ত্রণালয় থেকে মাঠ পর্যায়ের কার্যক্রম তদারকির প্রক্রিয়া চালু বিশেষ করে যন্ত্রপাতি, জনবল কর্মক্ষেত্রে উপস্থিতি তদারকি করা হবে। মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কোন মাঠ পর্যায়ের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন করবেন।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিষ্ঠান ও কার্যক্রম সমূহের পরিদর্শনের জন্য বিভাগীয় পর্যায়ে সফর করবেন। স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের বিভিন্ন পদে ইতোমধ্যে গৃহীত পদোন্নতি প্রক্রিয়া শেষ করা হবে বলেও জানান তিনি।

একশ’ দিনের কার্যক্রমের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে যথাযথ প্রচার-প্রচারণা কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। সব হাসপাতালে সহজে দৃশ্যমান সাইন বোর্ড সহ নিওন সাইন এর সাইনবোর্ড স্থাপন করা হবে। প্রতিটি হাসপাতালে প্রদেয় সেবা এবং গ্রহীতা বিভিন্ন ইউজার চার্জের তালিকা যথাযথভাবে প্রদর্শন নিশ্চিত করা হবে।

স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে সেবা গ্রহীতাগণ যেসব সমস্যার সম্মুখীন হন সে সব সমস্যা এবং তার সমাধান এর বিষয়ে সেবা গ্রহীতাদের পরামর্শ গ্রহণের জন্য ওয়েবসাইট এ অভিযোগ করার ব্যবস্থা চালু করা হবে। হাসপাতাল অ্যাম্বুলেন্স ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা দের জন্য জিপ গাড়ি প্রদান করা হবে।

এ সময় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মো: মুরাদ হাসান উপস্থিত ছিলেন।

বিডি২৪লাইভ/এসএইচআর/টিএএফ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: