প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

জামায়াতের বাইরে যাওয়ার যায়গা নেই বিএনপির: শাজাহান খান

১৬ জানুয়ারি ২০১৯ , ০৬:৪৪:০০

ছবি : প্রতীকী

সমস্ত জোট ভোটের জন্যেও হতে পারে আবার আদর্শ প্রতিষ্ঠার জন্যেও হতে পারে, এই আদর্শ বিহীন কোনো রাজনীতি রাষ্ট্র পরিচালনা দেশ জনগণের কল্যাণ করতে পারেনা বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক নৌ-পরিবন মন্ত্রী শাজাহান খান।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে, বিএনপির রাজনৈতিক টানাপোড়ন কি ভোটের জন্যে নাকি আদর্শিক যায়গায় এমন এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক নৌ-পরিবন মন্ত্রী শাজাহান খান একথা বলেন।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে সরকার পরিচালিত হতে হবে আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে বিরোধীদলকেও পরিচালিত হতে হবে হবে। এটাই হচ্ছে আমাদের আদর্শ এবং চেতনা। এইটা যাদের মধ্যে থাকেনা তারা বিভ্রাটের মধ্যে পরে যেটা এখন বিএনপি পরেছে।

তিনি বলেন, বিএনপি জোট ছিল প্রথমত ছিল জামাত ভিত্তিক। তারা জামায়াতকে এমন হৃষ্টপুষ্ট করেছে যে জামায়াতের বাইরে তাদের যাওয়ার যায়গা নেই। যখন বিএনপি জামায়াতকে নিয়ে হোঁচট খাচ্ছিল এ অবস্থায় তারা ভর করল এসে ড. কামালের ওপর।

তিনি আরও বলেন, ড. কামাল বললেন যখন বললেন জামায়াতিদের সাথে আমরা জোট করব না। তখন আমরা ভাবলাম তিনি হয়তো তার মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের যায়গাটা ধরে রেখেছে। কিন্তু যখন জামায়াতের সাথেও তারা জোট করল তখন তারা বললো তারা জামায়াত নয় তারা বিএনপির সাথে বৈঠক করেছে, পরে বিএনপি আবার জামায়াতের সাথে বৈঠক করল তখন তারা ২০ দলীয় জোট না বলে বলল বিএনপির সাথে বৈঠক করেছে।

কিন্তু যখন নমিনেশন দিল তখন কিন্তু তারা ২৫ জন জামায়াতিদের নমিনেশন দিল। এখন তিনি বলছেন আমি জানতাম না জামাতিদের নির্বাচনে প্রার্থী করা করা হয়েছে। এইটা আসলে একটা লুকোচুরি করা হয়েছে। ওনার (ড. কামাল) মত মানুষ এত বড় একটা ভুল করবে? আমি জানিনা।

শাজাহান খান। ফাইল ফটো

বিএনপির ব্যর্থতার যায়গার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেই জনগণের জন্যে রাজনীতি সেই জনগণকেই পুড়িয়ে পিটিয়ে হত্যা করবেন সেই রাজনীতি জনগণ গ্রহণ করতে পারেনা। আর পারেনা বলেই তারা এই যায়গাটায় এমন ভাবে কুঁজো হয়ে গেছে যে তাদের মেরুদণ্ড সোজা করতে পারাটা কঠিন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে শাজাহান খান বলেন, ৭০ এর নির্বাচনে জনগণের ব্যাপক সাড়া ছিল, এবারের নির্বাচনেও সেই উৎসব উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে নির্বাচন হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সাবেক নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন লেখক গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ, ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: