সুমিত সরকার সুমন

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জে ট্রলার ডুবি 

উদ্ধার কাজে যোগ গিয়েছে প্রত্যয় ও নৌবাহিনীর বিশেষ দল 

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:৫৯:০০

ছবি: প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জের সীমানাধীন মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া ট্রলারটি এখনও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি তবে নদীর তলদেশে সোনার স্ক্যানে ট্রলার জাতীয় কিছু একটার অস্তিত্ব পাওয়া কথা জানিয়েছে বিআইডাব্লিউটিএ। ইতিমধ্যে উদ্ধার কাজের গতি বাড়াতে যোগ দিয়েছে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় ও আট সদস্যদের নৌবাহিনীর বিশেষ টিম। নিখোঁজ স্বজনদের খোজে ভীর বাড়ছে মেঘনার পাড়ে স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে সেখানকার পরিবেশ।

কারো ছেলে কারো বা ভাই কারো আবার নিকট আত্মীয় নিখোঁজের তিনদিন পাড় হলেও সন্ধান নেই। নিখোঁজ স্বজনদের সন্ধান পেতে তাই টানা দুই দিন ধরে মেঘনার পাড়ে আশ্রয় নিয়েছেন স্বজনরা। অশ্রু সিক্ত চোখে তাদের অপেক্ষা প্রিয় মানুষটির ভাগ্যে যাই ঘটুক অন্তত লাশ চান তারা।

গত মঙ্গলবার ভোরে মুন্সীগঞ্জের সীমানাধীন মেঘনা নদীতে তেলবাহী ট্যাংকারের ধাক্কায় মাটি বোঝাই একটি ট্রলার ডুবে যায় এসময় ট্রলারে থাকা ১৪ জন শ্রমিক নদীর সাতরিয়ে তীরে উঠতে সক্ষম হলেও অন্তত ২০ শ্রমিক নিখোঁজ হয়। এ ঘটনার একদিন পর বুধবার উদ্ধার অভিযান শুরু করে প্রশাসন।

ফায়ার সার্ভিস বলছে,দুর্ঘটনার সময় শ্রমিকরা প্রায় সবাই ঘুমিয়ে থাকার কারণে ট্রলার ডুবির স্থানটি সঠিকভাবে চিহ্নিত করতে পারছে না তারা। আর ট্রলারের চালকও নিখোঁজ থাকায় অনেকটা অনুমানের উপর ভিত্তি করে তাদের কাজ পরিচালনা করতে হচ্ছে। মেঘনা নদীর এই অংশের গভীরতা ও প্রশস্ততা বেশী হওয়ায় উদ্ধার কাজে বেগ পেতে হচ্ছে তাদের।

এদিকে আজ দুপুরের পর অত্যাধুনিক সাইড স্ক্যান সোনার প্রযুক্তির মাধ্যমে নিখোঁজ ট্রলারটি অবস্থান শনাক্ত করতে সম্ভাব্য এলাকায় নদীর তলদেশের ছবিতে ট্রলার জাতীয় কিছু একটার অস্তিত্ব পাওয়া গছে বলে জানায় উদ্ধারকাজে নিয়োজিত ব্যক্তিরা। তবে এটি সেই ডুবে যাওয়া ট্রলার কি-না তা এখন নিশ্চিত নয় বলে জানিয়েছেন তারা।
বিআইডাব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডোর মোজাম্মেল হক দুর্ঘটনাস্থল থেকে জানান, আমরা নদীর নিচে ট্রলার সাদৃশ একটি ইমেজ পেয়েছি তবে তা ট্রলার কিনা নিশ্চিত হবার জন্য ঢাকা থেকে আরো ইকুইপমেন্ট আনা হয়েছে। একই সাথে ৮ সদস্যেসের নৌবাহিনীর বিশেষ টিম ও নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় উদ্ধার অভিযানে যোগ দিয়েছে আশা করছি অচিরেই ট্রলারটিকে খোঁজে পাওয়া যাবে।

বিডি২৪লাইভ/এজে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: