সম্পাদনা: আমিনুল ইসলাম রোমান

ডেস্ক এডিটর

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর ফুপা দিলেন ৫১০ টাকা!

২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৬:৩৪:১৯

ছবি: প্রতীকী

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রী (৭) ফুফা কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ধর্ষণের পর শিশুটির হাতে ৫১০ টাকা দিয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য হুমকি দেন তার ফুপা।

গত সোমবার (১৪ জানুয়ারি) উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের বিলাসেরপাড় এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটলেও গতকাল সোমবার (২০ জানুয়ারি) এ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকে বিষয়টি জানাজানি হয়। শিশুটি বর্তমানে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।

শিশুটির পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বিলাসেরপাড় গ্রামের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া ৯ বছরের শিশুকে তার খেলার সঙ্গী ও আপন ফুফাতো ছোট ভাই সঙ্গে করে তাদের বাড়িতে নিয়ে যায় তাদের সঙ্গে রাতে থাকার জন্য। তারা মামাতো-ফুফাতো ভাই-বোন রাতের খাবার শেষ করে একই সঙ্গে ঘুমাতে যায়। মধ্যরাতে শিশুটির ফুফা কুদরত মিয়া শিশুটিকে ঘুম থেকে তোলে ঘরের মেঝেতে ফেলে ধর্ষণ করে। তবে কুদরত রাতে এ ঘটনা ঘটানোর সময় তার স্ত্রী বাড়িতে ছিল না।

আরো জানা যায়, ধর্ষণের পর কুদরত মিয়া শিশুটির হাতে ৫১০ টাকা দেন। এ বিষয়টি কাউকে বললে তাকে হত্যা করার হুমকি দেন। এরপর ভয়ে ঘটনাটি কাউকে জানায়নি স্কুলছাত্রী। ১৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মাকে ঘটনাটি জানায়। এরপর রাত সোয়া ১১টায় মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পর কুদরত মিয়া পালিয়ে যান।

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. পলাশ রায় জানান, শিশুটিকে প্রয়োজনীয় সকল ধরণের মেডিকেল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পেলেই আমরা সংশ্লিষ্ট থানায় তা প্রেরণ করবো।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে গতকাল ২০ জানুয়ারি থানায় একটি মামলা হয়েছে। ঘটনার সাথে অভিযুক্ত কুদরত মিয়াকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে বলেও জানান বাংলাদেশ পুলিশের এ কর্মকর্তা।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: