মির্জাপুরে সেই এসআই ক্লোজড, বাকিরা কারাগারে

২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৯:১৯:০০

ছবি: প্রতিনিধি

মো: জোবায়ের হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) থেকে: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ডাকাত ভেবে সারারাত পুলিশ আটকে রাখার ঘটনায় অভিযুক্ত এসআই সোহেল কুদ্দুসকে ক্লোজড করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ছাড়া সেই ঘটনায় ওই অফিসারের সঙ্গে থাকা থানার বাবুর্চি শহিদুলসহ সাইদুর, আনোয়ার ও ফিরোজকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার দিনগত রাত ২টার পর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের গেড়ামারা গ্রামের জনৈক আলমাস মিয়ার বাড়িতে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ঘরের দরজা খোলার জন্য উচ্চবাচ্য করতে থাকে ৬-৭ জন লোক। পরে আলমাসের স্ত্রী আতঙ্কিত হয়ে ডাক-চিৎকার করতে থাকলে আশেপাশের প্রতিবেশী ও গ্রামবাসী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের পরিচয় জানতে চায়।

সেখানকার একজন নিজেকে মির্জাপুর থানার এসআই পরিচয় দিলেও বাকিরা নিজেদের পুলিশের কেউ নয় ও একজন নিজেকে মির্জাপুর থানার বাবুর্চি পরিচয় দেয়। পুলিশ পরিচয় দেওয়া সিভিল ড্রেসে থাকা ব্যক্তিকে গ্রামবাসী তার পুলিশ আইডি কার্ড, ওয়ারেন্ট দেখাতে বললে তিনি তা দেখাতে ব্যর্থ হন।

পরে বিক্ষুদ্ধ গ্রামবাসী তাদের আটক করে রাখে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় হাইওয়েতে টহলরত কয়েকজন পুলিশ। কিন্তু গ্রামবাসীর তোপের মুখে তারা সরে আসতে বাধ্য হন। অবশেষে রবিবার ভোরে মির্জাপুর থানার উধ্বর্তন কর্মকর্তারা গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

তবে ওইদিন রাতে মূলত আলমাস মিয়ার পাশের বাড়িতে মাদক অভিযানে গিয়েছিলেন মাদক বিষয়ে ওই কর্মকর্তা যা ঘটনাক্রমে বাড়ি ভুল করায় ডাকাত ভাবার মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়।

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুল হক জানান, বিভাগীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসআই সোহেল কুদ্দুসকে ক্লোজ করে টাঙ্গাইল পুলিশ লাইনে পাঠানো হয়েছে ও বাকি অন্যান্যদের জিডি মূলে কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বিডি২৪লাইভ/এজে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: