সম্পাদনা: আমিনুল ইসলাম রোমান

ডেস্ক এডিটর

বিয়ের আশ্বাসে সর্বস্ব লুট, তরুণীর কাণ্ডে এলাকায় তোলপাড়!

২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ২১:৩৬:১৯

ছবি: সংগৃহীত

বিয়ে করে শুরু করবে সুখের সংসার জীবন। এমনই আশ্বাসের ভিত্তিতে রোকেয়ার সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়েছিল সামাদ। এরপর তার সর্বস্ব লুট করে নিয়েছে ঐ লম্পট প্রেমিক। এরপর প্রেমিকের বাড়ীতে অনশন শুরু করে প্রেমিকা।

এমনই ঘটনা ঘটেছে সিলেটের গোয়াইনঘাটে। জানা যায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীর সর্বনাশ ঘটিয়েছে এক লম্পট। বিবাহ করে সংসার জীবন শুরু করবে এমন আশ্বাসের ভিত্তিতে তার সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তার সর্বস্ব লুট করে নিয়েছে ঐ লম্পট প্রেমিক। এমনটাই দাবি করছে তার বাড়িতে অনশনরত প্রেমিকা।

তিনি জানান, দীর্ঘদিন স্বামী স্ত্রীর পরিচয়ে ঢাকার একটি হোটেলে পরে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে সময় কাটছিল তাদের। এমতাবস্থায় হঠাৎ প্রেমিকাকে রেখে পালিয়ে যায় লম্পট প্রেমিক। এঘটনায় বিয়ের দাবীতে ঐ প্রেমিকের বাড়ীতে উপস্থিত হয় রোকেয়া খানম। এঘটনায় গোয়াইনঘাটে তোলপাড় চলছে।

স্থানীয় এবং পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ২নং পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের বুগইলকান্দি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাসিমের ছেলে আব্দুস সামাদ তাদের পার্শবর্তী বাড়ীর বাবুল মিয়ার মেয়ে রোকেয়া খানমের সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে। এমতাবস্থায় বিষয়টি পারিবারিকভাবে জানা জানি হলে এসর্ম্পক মেনে নেয়নি উভয় পরিবার।

এদিকে প্রেমিক প্রেমিকা সময়ে তাদের সর্ম্পক চালিয়ে যায়। এক সময় তাদের মধ্যে শারীরিক সর্ম্পকও গড়ে উঠে। এরই মধ্যে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ের দাবীটি প্রত্যাখান করা হলে তারা গোয়াইনঘাট থেকে পালিয়ে ঢাকায় চলে যায়। একটি হোটেলে স্বামী স্ত্রী পরিচয়ে কিছুদিন অবস্থান করে। ঘর সংসার না হলেও তারা বিয়ে করা স্বামী স্ত্রীর মতোই চলছিল। এমতাবস্থায় সম্প্রতি প্রেমিকাকে ঢাকায় ফেলে পালিয়ে আসে প্রেমিক সামাদ। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে প্রেমিকা রোকেয়া খানম ঢাকা থেকে গোয়াইনঘাটের পশ্চিম জাফলং বুগইলকান্দি গ্রামে ছুটে আসে।

সোমবার সকাল ১০ ঘটিকায় সোজা গিয়ে উঠে প্রেমিক সামাদের বাড়ীতে। বিয়ের দাবীতে শুরু করে অনশন। হঠাৎ প্রেমিকার উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ীতে থাকা লম্পট প্রেমিক গা ঢাকা দেয়। এদিকে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকার অনশনের খবর স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে প্রেমিকাকে দেখতে ভীড় জমে যায় ঐ বাড়ীতে।

এব্যাপারে কথা হলে প্রেমিকা রোকেয়া খানম সাংবাদিকদের জানায় আমার সাথে দীর্ঘ ৪ মাস থেকে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে সামাদ। আমাকে বিয়ে করে ঘরে তুলবে এমন মিথ্যা আশ্বাসে আমার সর্বস্ব লুটে নিয়েছে। ঢাকায় নিয়ে স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে হোটেলে রেখে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করেছে দিনের পর দিন। আবার আমাকে ঢাকায় ফেলে পালিয়ে আসে। আমি তার স্ত্রীর মর্যাদার দাবী আদায়ের জন্য তার বাড়ীতে অবস্থান করছি এবং আমরণ অনশন করে যাব। এব্যাপারে আমি সাংবাদিক ভাইদের সহযোগিতা কামনা করছি।

এবিষয় কথা হলে গোয়াইনঘাট থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল জলিল বলেন, বিষয়টি আমরা জেনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: