প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এসএসসি পরীক্ষা আমাদের জন্যও পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত: ০১:০২ অপরাহ্ণ, ২২ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

এসএসসি পরীক্ষাকে নিজেদের (মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পাওয়া মন্ত্রী, উপমন্ত্রী) জন্যও একটি পরীক্ষা বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে জাতীয় স্কুল ও মাদরাসার শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘পরীক্ষার আগে আপনারা কোনো ধরনের অনৈতিক পথের খোঁজে নামবেন না। আমরা চেষ্টা করব, কোনোভাবেই কোনো দুর্বৃত্ত যেন আমাদের সুন্দর প্রক্রিয়াকে নষ্ট না করে। কিন্তু প্রশ্নপত্র পাবার ব্যাপারে অভিভাবক ও পরীক্ষার্থীদের একাংশের যদি বিশাল আগ্রহ না থাকে, চেষ্টা না থাকে, তাহলে দুর্বৃত্তরা এ অপকর্ম করার চেষ্টা করবে না।’

দীপু মনি বলেন, আমরা সব সময় ভাবি ক্লাসে কী করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় হব। সেটি নিশ্চয় জরুরি। ভালো করা নিশ্চয় জরুরি। জিপিএ-৫ পাওয়া জরুরি। কিন্তু সেটিই একমাত্র বিষয় হতে পারে না। আমি ভালো মানুষ হলাম কি না। আমার মধ্যে মানবিকতাবোধ, আমার মধ্যে নৈতিকতা সেগুলো ঠিকমতো আছে কি না। আমি সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠলাম কি না। সুস্থ, সুন্দর মন নিয়ে বড় হচ্ছি কিনা সেটি কিন্তু জরুরি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ করতে হলে আমাদের সুনাগরিক লাগবে, সোনার মানুষ লাগবে। এর জন্য শুধু জিপিএ-৫ পাওয়া একমাত্র পথ হতে পারে না। তার সঙ্গে সুস্থ মানুষ চাই। যে ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির প্রতি বিশ্বস্ত হবে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হবে, দেশ, পরিবেশ ও মানুষের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হবে তেমন মানুষ গড়ে তুলতে চাই।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার মান আরো উন্নত করতে চাই। আমরা শিক্ষার মানে মনোযোগী হয়েছি। সেই জন্য মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদমুক্ত সমাজ গড়তে হবে। এক্ষেত্রে খেলাধুলার বিকল্প নেই। আমাদের জনসংখ্যার চাপ আছে, খেলার মাঠের অভাব আছে। আমাদের মেয়েরা এখন বিশ্ব মাত করছে। ছেলেরাও তা পারবে। বিজ্ঞান, তথ্যপ্রযুক্তির শিক্ষার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হতে হবে। শারীরিক, মানসিক, আত্মিক বিকাশের দিকে, পুষ্টির দিকে নজর দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল শিক্ষার্থীদেরকে জ্ঞানের পরিধি বাড়াতে পাঠ্যপুস্তকের বাইরের বিষয়াদি নিয়েও পড়াশোনার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, তোমরা অবশ্যই পড়াশোনা করবে। পড়াশোনাকে জীবনের জন্য অর্থবহ কাজে পরিণত করতে হবে। ফলাফলের দিকে না তাকিয়ে জ্ঞান এবং শিক্ষাকে নিতে হবে মননকে শাণিত করার উপাদান হিসাবে। আমাদেরকে গুণীজনদের কাছ থেকে এবং ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে হবে। তিনি পড়ালেখার পাশাপাশি নিয়মিত খেলাধুলা করারও তাগিদ দেন। তিনি বলেন, আজ বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনা করছেন। তিনি দেশ পরিচালনা করছেন বলেই তোমরা স্বাধীনতার সত্যিকারের ইতিহাস জানতে পারছ। জাতির জনক সম্পর্কে জানতে পারছ। মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারছ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক। বক্তব্য রাখেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শাহেদা ইসলাম।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে পাঁচ দিন ব্যাপী প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেন সারা দেশের ৮০৮ ছাত্রছাত্রী। জাতীয় ও ক্রীড়া পতাকা উত্তোলনের পর চারটি অঞ্চলে বিভক্ত ছাত্রছাত্রীরা প্রধান অতিথি ডা. দীপু মনিসহ অতিথিদের সালাম জানায়। এ সময় অন্যান্যের মাঝে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান নওফেল ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পদস্থ কর্মকর্তারা।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: