প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

‘জাজের আজিজের জন্য সিনেমার আজ দুর্দিন’

১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ , ০৪:১০:২৮

ছবি: ইন্টারনেট

দেশীয় সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী অরুনা বিশ্বাস। বড় পর্দার এই অভিনেত্রী বর্তমান ছোট পর্দার কাজ নিয়ে কিছুটা ব্যস্ত সময় পার করছেন। অন্যদিকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের নব্য সদস্য হয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে খুব ব্যস্ত সময় পার করছেন না অরুনা।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) অরুনা বিশ্বাস বিডি২৪লাইভকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। তিনি বলেছেন পরিবার, কাজ ও সিনেমা নিয়ে নানা কথা। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন স্টাফ করেসপন্ডেন্ট আরেফিন সোহাগ।

অরুনা বিশ্বাস নিজের বর্তমান ব্যস্ততা এবং পরিবার নিয়ে বলেন, ‘বর্তমানে দুটি নাটকের কাজ শেষ করলাম। কয়েকটি সিনেমার জন্য কথা চলছে। আর পরিবারের সবাইকে নিয়ে আমি বেশ ভালো আছি। আপনারা জানেন আমি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য হয়েছি। এখন একটু এই দিকেও ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে।’

বর্তমান সিনেমা নিয়ে কথা তুলে তিনি বলেন, ‘শুধু আমাদের দেশে না, সারা বিশ্বের সিনেমার অবস্থা খারাপ। আর এখন সিনেমা তৈরি না হওয়ার পিছনের কারণ আছে অনেক। আমি সেন্সর বোর্ডের সদস্য হওয়াতে অনেকে খুশি হয়েছেন। সিনেমার জন্য কাজ করার ইচ্ছা আছে। আমাদের দেশের সিনেমার ১২টা বাজিয়ে দিয়েছেন জাজের আজিজ (জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ)।

তিনি কোটি কোটি টাকা দেশের বাইরে পাচার করে আসছেন। দেশের বাইরের শিল্পী এনে দেশের সিনেমা ও সংস্কৃতিকে নষ্ট করে দিয়েছেন। উনি সিনেমা নিয়ে অনেক অনিয়ম করেছেন। আমাদের শিল্পীদের বিভক্ত করেছেন। যেটা উনার উচিত হয় নি। জাজের আজিজের জন্য সিনেমার আজ দুর্দিন।

আমাদের সময় সবাই খুব ভালো গল্পের সিনেমা তৈরি হতো। এখন সব তামিল ছবির নকল তৈরি করা নিয়ে ব্যস্ত। এখনো আমাদের দেশে ভালো গল্প আছে। যে গুলো নিয়ে কাজ করলে সিনেমার দিন ফেরানো সম্ভব।’

সিনেমা হল ও পরিবেশ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের কয়েকটি ছাড়া বাকি সব সিনেমা হলের অবস্থা খুব খারাপ। আর পরিবেশ তো নাই। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বসে দেখা যায় না। আমি মনে করি আগে আমাদের হল গুলোর পরিবেশ ঠিক করতে হবে। দর্শক হচ্ছে সিনেমার প্রাণ। সুন্দর পরিবেশ তৈরি করতে পারলে দর্শক বাড়বে।’

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: