মাশরাফির কণ্ঠে হতাশা

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ , ১০:২৮:০০

ছবি : ফাইল ফটো

নেপিয়ারের পর ক্রাইস্টচার্চ। ভেন্যু বদলেছে। তবে দৃশ্যপট একই। বাংলাদেশের টপ অর্ডারের ব্যর্থতা। মিঠুনের ফিফটি। আড়াইশর নিচে অলআউট হওয়া। মার্টিন গাপটিলের সেঞ্চুরি। নিউজিল্যান্ডের ৮ উইকেটে জয়। চিত্রনাট্য যেন একই। শুধু ২২ গজের যুদ্ধের ময়দান আলাদা। ওয়ানডেতে সাফল্যের ভেলায় ভাসতে থাকা বাংলাদেশ দলকে যেন ‘অচেনা’ বলেই মনে হচ্ছে!

দেশ ছাড়ার আগে যদিও টাইগারপ্রেমীদের বড় কোনো স্বপ্ন দেখাননি মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার পরও ছিল আশা, ছিল তামিম-মুশফিকদের প্রতি ভরসা! টাইগারপ্রেমীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ২২ গজের ময়দানে প্রতিদ্বন্দ্বিতার নেই ছিটেফোঁটা!

হেসে খেলে টাইগারদের হারিয়ে দিচ্ছে কিউইরা। দ্বিতীয় ওয়ানডের আগের দিন মেহেদী হাসান মিরাজ বলেছিলেন, এখনো সিরিজ জেতা সম্ভব। এ জন্য দ্বিতীয় ম্যাচ গুরুত্বপূর্ণ। এ ম্যাচ জিতলে আত্মবিশ্বাস বাড়বে। যা শেষ ম্যাচে কাজে লাগবে। তবে ক্রাইস্টচার্চে গতকাল দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও কুপোকাত টাইগাররা। এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়ে গেছে স্বাগতিকদের।

কেন উইলিয়ামসের দল চাইবে বাংলাদেশকে ধবলধোলাই করতে। অন্যদিকে মাশরাফিরা চাইছেন, মান বাঁচাতে। শেষ ম্যাচটি জিতে ধবলধোলাই এড়ানোর চেষ্টা করবেন মাশরাফি, তামিমরা। প্রথম ম্যাচ শেষে ব্যাটসম্যানদের দুষেছিলেন মাশরাফি। দ্বিতীয় ম্যাচেও তো একই চেহারা। তামিম, লিটন, সৌম্য, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহদের রুগ্ন দেহটাই যেন দেখা গেছে!

দলীয় ৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যাটসম্যানদের যাওয়া-আসার মিছিলে ৮৮ রান জমা হতেই নেই আরও ৪ উইকেট। ৯৩-৫। ফার্গুসন, নিশাম, অ্যাস্টলদের বিপক্ষে লড়াই করেছেন মিঠুন আর সাব্বির। হারের কী ব্যাখা দেবেন মাশরাফি? পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মাশরাফির কণ্ঠে হতাশা।

বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক বললেন, ‘এই ম্যাচ থেকে নেওয়ার মতো ইতিবাচক তেমন কিছু নেই। আমাদের আসলে দল হিসেবে খেলতে হবে। রান ২৭০-২৮০ হলে তখন লড়াই করতে পারব।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার জন্য কঠিন একটা দিন ছিল। আমরা দ্রুত উইকেট হারিয়েছি। বড় জুটি হলে ম্যাচটা অন্যরকম হতে পারত। মিঠুন ও মোস্তাফিজ ভালো করেছে।’ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি জিতে ধবলধোলাই এড়াতে পারবেন তো মাশরাফি, তামিমরা? উত্তর মিলবে ২০ ফেব্রুয়ারি। সূত্র: আমাদেরসময়।

বিডি২৪লাইভ/টিএএফ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: