চলে যাওয়ার ১১ বছর

মান্নার স্বরণে যা বললেন স্ত্রীসহ তারকারা

প্রকাশিত: ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ছবি: ইন্টারনেট

এসএম আসলাম তালুকদার মান্না। সিনেমা প্রেমী মানুষের কাছে মান্না নামেই পরিচিত। বাংলা চলচ্চিত্রের পর্দাকাঁপানো এই নায়ক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৪৪ বছর বয়সে ২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে চলচ্চিত্র পাড়ায় নেমে আসে শোকের ছাঁয়া। বিশিষ্ট চলচ্চিত্র ব্যক্তিদের ভাষ্যমতে এই নায়কের মৃত্যুতে যে ক্ষতি হয়েছে ইন্ডাস্ট্রির তা আজও পূরণ হয়নি। আর আগামীতে বাংলা ছবির দর্শকরা আরেক মান্নার দেখা পাবেন কি না তা নিয়ে রয়েছে দ্বিমত।

মান্নার চলে যাওয়ার ১১ বছর নিয়ে মান্নার শুভাকাঙ্খি ও সহকর্মীদের বক্তব্য নিয়ে বিডি২৪লাইভ’র স্টাফ করেসপন্ডেন্ট আরেফিন সোহাগ’র রির্পোট

প্রয়াত নায়ক মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না বিডি২৪লাইভ বলেন, ‘প্রতিবারের মত এবার বাসায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মান্নার স্মৃতিবিজড়িত এফডিসিতেও দোয়া-মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মান্না মৃত্যুর পর আমি সব কিছু ধরে রেখেছি। মান্নার স্মৃতি যেন হারিয়ে না যায়।’

তিনি বলেন, ‘এই বছরেই মান্নার কিছু রেখে যাওয়া কিছু কাজ সম্পন্ন হবে। তৈরি করা হবে মান্নার ‘গীতাঞ্জলি’ প্রতিষ্ঠানের নামে ইউটিউব চ্যানেল। মান্নার জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। সবাই মান্নার জন্য দোয়া করবেন।’

চিত্রনায়ক সোহেল রানা বিডি২৪লাইভ বলেন, ‘মান্নার অসময়ে চলে যাওয়াটা আমার হৃদয়ে দাগ কাটে। মান্নার সাথে কিছু সিনেমায় কাজ করেছি আমি। আমি দেখেছি একজন শিল্পমনা মানুষকে। নিজের ঢংয়ে অভিনয় করত মান্না। বাংলা ছবির অভিনয়ের ধারাকে পরিবর্তন করেছিল মান্না। তার শব্দ উচ্চারণ ছিল খুব সুন্দর। সিনেমা নিয়ে চিন্তা করতো সে। আমি বলবো যে, বাংলা ছবির কিং বলতে মান্নাই ছিল। হিরো মানেই মান্না। মান্না চলে গিয়ে অনেক ভালো করেছে, কারণ তার সময় সিনেমার দুর্দিন ছিল না। আজ মান্না থাকলে এই দুর্দিন দেখে কষ্ট পেত। তাই আমি মনে করি মান্না রাজার মতই মৃত্যু বরণ করেছে।’

চিত্রনায়িকা চম্পা বিডি২৪লাইভ বলেন, ‘মান্নার অভাব পূরণ হবার না। তার মধ্যে আমি অহংকার দেখি নি। আমরা এক সাথে অনেক ছবিতে অভিনয় করেছি। আমাকে সব সময় নাচের বিষয়ে সাহায্য করত মান্না খুব ভাল নাচতে পারত। কাজের প্রতি মান্নার কোন অনিহা দেখি নি। আজও মান্নাকে আমি মিস করি। মান্নার চলে যাওয়াতে অনেক বড় ক্ষতি হয়েছে চলচ্চিত্রের। আমি তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।’

চিত্রনায়িকা শাবনূর বিডি২৪লাইভ বলেন, ‘আমি এখনো মনে করি মান্না ভাই বেঁচে আছেন। আমি বড় ভায়ের মত দেখতাম তাকে। আমার সব আপদার পূরন করতো। মান্না ভায়ের সাথে অনকে ঝগড়াও করেছি আমি। তার মৃত্যু সত্যি আমি মেনে নিতে পারি নি। উনি যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন।’

চিত্রনায়িকা অরুনা বিশ্বাস বিডি২৪লাইভ বলেন, ‘মান্না আমার বন্ধুর মত ছিল। তার মৃত্যুর এক সপ্তাহ আগে আমার সাথে কথা হয়েছে। একজন ফিল্মের মানুষ বলতে যা বোঝায় মান্না ছিল তেমন। তার অকাল চলে যাওয়াতে চলচ্চিত্রের অনেক বড় ক্ষতি হয়েছে।’

প্রায় তিন শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করে কোটি ভক্তের চোখ ফাঁকি দিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান এই কিংবদন্তি অভিনেতা। মান্না অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবি হচ্ছে- সিপাহী, যন্ত্রণা, অমর, পাগলী, ত্রাস, জনতার বাশা, লাল বাদশা, আম্মাজান, আব্বাজানা, রুটি, দেশ রী, অন্ধ আইন, স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ, অবুঝ শিশু, মায়ের মর্যাদা, মা-বাবার স্বপ্ন, হৃদয় থেকে পাওয়া ইত্যাদি।

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: