মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারের  দাবীতে মানববন্ধন

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৮:০৬:০০

ছবি: প্রতিনিধি

ভোলা শহরের মাদক ব্যবসায়ী মোঃ আলী জিন্নাহ রাজীবকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে কয়েকটি সংগঠন। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল শেষে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে সংগঠনের নেতারা।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শহরের কে-জাহান মার্কেট এর সামনে কয়েকটি সংগঠনের আয়োজনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়।

এ সময় বক্তারা অবিলম্বে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী রাজিবকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা ও মাদকের ছোবল থেকে এলাকার যুব সমাজকে রক্ষা করার দাবী জানায়। এবং সাংবাদিকের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়।

এসময় বক্তব্য রাখেন, হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরামের সভাপতি মোবাশ্বের উল্ল্যাহ চৌধুরী, ভোলা জেলা মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম সম্পাদক এ্যাডভোকেট সাহাদাত শাহিন, ভোলা জেলা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব এস এম বাহাউদ্দিন, হেল্প এন্ড কেয়ার এর সিনিয়র সদস্য আমজাদ মুক্তি, চ্যানেল টোয়েন্টিফোর প্রতিনিধি আদিল হোসেন (তপু) সহ আরও অনেকে।

মানববন্ধনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন ভোলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। মানববন্ধনে ভোলার কয়েক’শ মানুষ অংশগ্রহণ করে।

প্রসঙ্গত, (গত১৪ ফেব্রুয়ারি) বৃহস্পতিবার ভোলায় ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রিতে বাঁধা প্রদান করায় স্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ভোলা নিউজ-২৪ ডট নেট এর নির্বাহী সম্পাদক মোঃ রকিব উদ্দিন (অমি)'র উপর হামলা করে মাদক ব্যবসায়ী রাজিব। এ বিষয়ে হামলায় আহত মোঃ রাকিব উদ্দিন ( অমি) বৃহস্পতিবার রাতেই রাজীবকে প্রধান আসামী করে অজ্ঞাতনামা আরও ৫ জনের নামের মামলা করে। যার মামলা নং ৪১১৯।

সূত্রে জানা যায়, রাজিব দীর্ঘদিন ধরে ভোলা শহরের বাংলা স্কুল মোড়ে বিভিন্ন লোকের কাছে ইয়াবা বিক্রি ও সেবন করে আসছে। যার কারণে স্থানীয় যুব সমাজ নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। সে নিজেও ইয়াবা সেবন করে আসছে। তার কাছে গভীর রাতে ভোলা শহরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীদের নিয়ে তার বাসায় গভীর রাত পর্যন্ত ইয়াবার আসর বসে।

তার এ সকল মাদক ব্যবসা ভোলা টাইমস নামের একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের সাইন বোর্ড ব্যবহার করে আসছ। এক বছর আগে মাদক নিয়ে কুয়েত পুলিশের হাতে ধরা খেয়ে কয়েক মাস জেল খেটেছে। দেশে এসে ইয়াবা ব্যবসা চালাতে তার বাবা-মাকে ঘর থেকে লাঞ্চিত করে বের করে দেয়। এনিয়ে তার বাবা-মা ভোলার পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক, ইউএনও সহ গণ্যমান্যদের কাছে তার ছেলের ইয়াবা সেবন ও বিক্রি বন্ধের জন্য তাদের সহায়তা চায়। কোন কিছুতেই তার ইয়াবা বিক্রি ও সেবন বন্ধ হয়নি। বরং আরও কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিডি২৪লাইভ/এজে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: