পাকিস্তানে সৌদি যুবরাজের সফর, ভাবাচ্ছে ভারতকে!

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৯:১৪:০০

ছবি : ইন্টারনেট থেকে

সৌদি যুবরাজ হওয়ার পর এটিই যুবরাজ মোহাম্মদের প্রথম পাকিস্তান সফর। অবশ্য প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর দুই বার সৌদি আরব ঘুরে এসেছেন ইমরান খান।

রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় পাকিস্তান পৌঁছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। দুই দিনের সফরে বর্তমানে পাকিস্তানে রয়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

এর মধ্যেই পাকিস্তানের সঙ্গে দুই হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ চুক্তি স্বাক্ষর করেছে সৌদি। সৌদির সঙ্গে বিশাল অংকের এই চুক্তি দেশটির ভঙ্গুর অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দু’দেশের মধ্যে যেসব চুক্তি স্বাক্ষর হচ্ছে তার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ বন্দর গোধারে একটি তেল শোধনাগার নির্মাণসহ ৮শ কোটি ডলারের একটি চুক্তি রয়েছে।

সৌদি যুবরাজের পাকিস্তান আগমন নিয়ে ইসলামাবাদ বেশ উচ্ছ্বসিত। বিশেষ করে বৈদেশিক রিজার্ভ কমে যাওয়া, প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়াসহ নানা সংকটে জর্জরিত পাকিস্তানের অর্থনীতি। ফলে, সৌদি যুবরাজের আগমন এবং বিশাল আকারের বিনিয়োগের ঘোষণা দেশটির শাসকগোষ্ঠীর জন্য আনন্দের বার্তা।

দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের গুণগান গেয়ে ইমরান খান বলেন, ‘পাকিস্তান ও সৌদি আরব দুই দেশের সম্পর্ককে এমন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে, যা আগে কখনই ছিল না। এই বিনিয়োগ থেকে দুই দেশই সমান উপকৃত হবে।’

সৌদি যুবরাজ বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, পাকিস্তান অদূর ভবিষ্যতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রে পরিণত হবে। আমরা এর অংশ হতে চাই।’

‘পাকিস্তানকে না বলতে পারি না’

সৌদি আরবে প্রায় ২৫ লাখ পাকিস্তানি শ্রমিক বিভিন্ন খাতে শ্রমিক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। তাঁদেরকে নানা সমস্যায় পড়তে হয় উল্লেখ করে পাকিস্তানি শ্রমিকদের সহায়তায় সৌদি যুবরাজের পদক্ষেপ কামনা করেন ইমরান খান।

ইমরান বলেন, ‘তাঁরা (শ্রমিকেরা) আমার হৃদয়ের মানুষ। তাঁরা পরিবার ও সন্তানদের ছেড়ে সব কষ্ট স্বীকার করে অর্থ উপার্জনের জন্য বিদেশ যান। কয়েক মাস বা বছরে তাঁরা তাঁদের পরিবারের সাথে দেখাও করতে পারেন না।’

জবাবে সৌদি যুবরাজ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে জানান, ‘আমাকে সৌদি আরবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত হিসেবে ধরে নিন। আমরা কখনও পাকিস্তানকে না বলতে পারি না।’

মোহাম্মদ বিন সালমানের এমন মন্তব্য ‘পাকিস্তানিদের মন জয় করে নিয়েছে’ বলে এক টুইটে মন্তব্য করেছেন ইমরান খান।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি ভারতীয় কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সেন্ট্রাল পুলিশ রিজার্ভ ফোর্সের ওপর হামলায় চল্লিশের বেশি জওয়ান মারা যাওয়ার ঘটনায় পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদকে দায়ী করে আসছে ভারত। এ হামলায় পাকিস্তান সরকারের মদদ আছে, এমন অভিযোগও তুলছেন কেউ কেউ।

পাকিস্তানে সৌদি যুবরাজের সফর তাই একটু ভাবাচ্ছে ভারতকেও। সৌদি আরব যদিও হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ভারতের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে বৈঠকে আসতে পারে ভারতের জ্বালানি ও অবকাঠামো খাতে বিশাল সৌদি বিনিয়োগের খবর। পাশাপাশি পাকিস্তানের বিষয়টিও জোরের সাথেই উঠে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: