প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

ছাড়া পেয়ে যা বলল সালমান মুক্তাদির

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৩২:০০

ছবি : ইন্টারনেট থেকে

‘অভদ্র প্রেম’ নামে বিতর্কিত ভিডিও ছেড়ে মন্ত্রীর নজরে আসা ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির দেড় ঘণ্টা পুলিশের সঙ্গে কাটিয়ে এসে বলেছেন, কোনো অভদ্রতা তার সঙ্গে করা হয়নি।

মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের পর ঢাকার মিন্টো রোডে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটে দেড় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় এই যুবককে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার নাজমুল ইসলাম।

নাজমুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার স্যারের সেফ ইন্টারনেট স্লোগানকে সামনে রেখে সালমান মুক্তাদিরকে ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরবর্তীতে জানানো হবে।’

এর আগে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার তার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে সালমান মুক্তাদিরের অবস্থান জানতে চেয়ে স্ট্যাটাস দেন।

ওই স্ট্যাটাসে মন্ত্রী লেখেন, ‘কেউ কি সালমান মুক্তাদিরের আজকের অবস্থা জানাতে পারবেন?’ এই বিষয়ে সালমাল মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন বলেও জানিয়েছেন মোস্তাফা জব্বার।

বিতর্কিত ভিডিও ছড়ানোয় অভিনেত্রী সানাই মাহবুবকে ডেকে নিয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের পর সালমান মুক্তাদিরকে নিয়েও একই পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি করছিলেন কেউ কেউ।

সালমান অনলাইনে বেশ জনপ্রিয়; ইউটিউবে তার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার প্রায় ১১ লাখ, ফেইসবুকে তার ফলোয়ার ১৬ লাখের মতো। নিজেকে বাংলাদেশি প্রথম সফল ইউটিউবার হিসেবে দাবি করেন এই যুবক।

সম্প্রতি তিনি ‘অভদ্র প্রেম’ নামে একটি মিউজিক ভিডিও তোলেন ইউটিউবে তার চ্যানেলে, যা ‘অশালীন’ বলে অনেকে সমালোচনা করছিলেন।

সালমানকে ডেকে নেওয়ার পর তাকে আটক করার গুঞ্জন ছড়িয়েছিল; তখন তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেলেও রাত ৮টার দিকে নিজের ফেইসবুকে তিনি লেখেন, তিনি গ্রেফতার হননি।

তবে, ঘণ্টা খানেক পর ওই পোস্টটি সরিয়ে নেন তিনি।

পরে মোবাইল সালমান গণমাধ্যমকে বলেন, তিনি নিজ উদ্যোগেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন।

সালমান বলেন, ‘সম্প্রতি আমাকে নিয়ে বিভিন্ন কথাবার্তা শুনে আমি নিজ উদ্যোগেই উনাদের ফোন করে গিয়ে দেখা করেছি। বাংলাদেশে ইউটিউব কনটেন্ট নিয়ে বিশেষ কোনো রেগুলেশন আমার জানা নেই। তাই উনাদের কাছ থেকে নির্দেশনা পাই কি না, সেটাই ছিল আমার জানার ইচ্ছা।’

কী বিষয়ে কথা হয়েছে- জানতে চাইলে সালমান বলেন, ‘আমি একটি মিউজিক ভিডিও বানিয়েছিলাম, যার নাম অভদ্র প্রেম। মূলত ইন্ডিয়ান দর্শকদের কথা মাথায় রেখেই ভিডিওটি বানাই। সেটা নিয়ে কিছু কথা হয়। ওটা আপাতত বাংলাদেশে প্রদর্শন বন্ধ রেখেছি।’

জিজ্ঞাসাবাদের সময় পুলিশ কর্মকর্তাদের আচরণের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমার সাথে কোনো খারাপ ব্যবহার করে নাই।’

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে সালমান মুক্তাদির তার ইউটিউব চ্যানেলে ‘অভদ্র প্রেম’ টাইটেলে একটি গানের ভিডিও প্রকাশ করেন। ভিডিওটি অশ্লিলতার দায়ে সমালোচনার মুখে পড়েন সালমান মুক্তাদির। এরপর তার ইউটিউব চ্যানেল এর সাবস্ক্রাইবার কমতে থাকে।

অনেকে নিজেই সালমান মুক্তাদিরের চ্যানেল আনসাবস্ক্রাইব করেছেন, অন্যকে আনসাবস্ক্রাইব করতে উৎসাহ দিয়েছেন। ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে তার ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার কমতে শুরু করেছে। এক সপ্তাহেই ইউটিউবের প্রায় দেড় লক্ষ ফলোয়ার হারান সালমান।

অন্যদিকে, মডেল-অভিনেত্রী সানাই মাহবুব সুপ্রভাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর ভিডিও ছাড়ানোর অভিযোগে রোববার (১৭ ফেব্রয়ারি) সন্ধ্যায় ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগে নিয়ে জিজ্ঞাসা বাদের পরে অঙ্গীকারের মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: