প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

কাশ্মীর হামলা, সব সম্পর্কই ছিন্ন করার পক্ষে সৌরভ

২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ , ১২:৩৫:১০

ছবি: ইন্টারনেট

তাঁর নেতৃত্বেই চোদ্দো বছর পরে পাকিস্তান সফরে টেস্ট সিরিজ খেলতে গিয়েছিল ভারতীয় দল। ২০০৩-০৪ সালের যে পাক সফর ছিল মৈত্রীর, নামকরণ হয়েছিল ‘দিল জিত লো’। সেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এখন চান, পাকিস্তানের সঙ্গে সব রকম সম্পর্ক ছিন্ন হোক। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জেরে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে ক্রিকেট-সম্পর্কের ক্রমশ অবনতি হচ্ছে। ভারতের বিভিন্ন ক্রিকেট কেন্দ্র থেকে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের ছবি সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। ভারত-পাক ক্রিকেট সম্পর্ক ছিন্ন করার দাবিও তুলেছেন হরভজন সিংহের মতো ক্রিকেটারেরা। এ বার গলা মেলালেন সৌরভও। বুধবার একটি সর্বভারতীয় টিভি চ্যানেলে সৌরভ বলেন, ‘পুলওয়ামায় গত সপ্তাহে যা ঘটেছে, তা অত্যন্ত দুঃখজনক। এর চেয়ে খারাপ কিছু হতে পারে না। আমি মনে করি, এই আক্রমণের পরে পাকিস্তানের সঙ্গে ক্রিকেট, হকি বা ফুটবল নয়, সব রকম সম্পর্কই ছিন্ন করা উচিত ভারতের।’       
বিশ্বকাপে ভারত-পাক ম্যাচ বয়কট করার দাবিও উঠেছে। যা নিয়ে সৌরভের মন্তব্য, ‘বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ না-খেলার যে দাবি উঠেছে, তার পিছনে আবেগটা আমি বুঝতে পারছি। এ ক্ষেত্রে ভারতের প্রতিক্রিয়া কড়া হওয়া দরকার।’

হরভজনের মতো সৌরভও মনে করেন, বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ না খেললে ভারতের কোনও ক্ষতি হবে বলে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২০০৩-২০০৪ সালে ভারতকে টেস্ট সিরিজ জেতানো সৌরভ বলেন, ‘এই বিশ্বকাপে দশটা দল একে অপরের বিরুদ্ধে খেলেছে। তাই মনে হয়, একটা ম্যাচ না খেললে ভারতের কোনও সমস্যা হবে।’ ভারতীয় বোর্ডের কি এই ব্যাপারে কিছু করা উচিত? সৌরভের জবাব, ‘এই মুহূর্তে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বিশেষ কিছু অবশিষ্ট নেই। কোনও পদাধিকারী নেই যে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। কিন্তু এর পরেও বলব, বোর্ডের উচিত কড়া সিদ্ধান্ত নেওয়া।’ সৌরভ এটাও মনে করিয়ে দিচ্ছেন, ‘ভারতকে ছাড়া আইসিসির পক্ষে বিশ্বকাপ করা কঠিন। কিন্তু এটাও দেখতে হবে, আইসিসি-কে থামানোর ক্ষমতা ভারতের আছে কি না।’   

এর পাশাপাশি দেশ জুড়ে চলছে বিভিন্ন রাজ্য ক্রিকেট সংস্থা থেকে পাক ক্রিকেটারদের ছবি সরিয়ে নেওয়ার ঘটনা। এমনকি, মুম্বইয়ে ভারতীয় বোর্ডের দফতরেও পাক ক্রিকেটারদের ছবি সরানোর খবর নিয়ে বুধবার দিনভর জল্পনা চলে। যদিও বোর্ডের কোনও কর্তা এই নিয়ে মুখ খোলেননি। 

অন্যান্য ক্রিকেট সংস্থা যে ভাবে প্রতিবাদ জানিয়েছে, সিএবি-ও সেই পথেই হাঁটবে কি না, বুধবার সেই বিষয় নিয়ে আলোচনা হলেও রাত পর্যন্ত অবশ্য কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। বৃহস্পতিবার এই নিয়ে ফের আলোচনায় বসতে পারেন সৌরভরা। সংবাদমাধ্যমের একাংশে এই নিয়ে জল্পনা শুরু হলে সাংবাদিকদের ইডেনে ঢোকার উপরে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যা নিয়ে বিকেল থেকে অনেক নাটকের পরে সন্ধ্যায় নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। 

বোর্ড দফতরে পাক ক্রিকেটারদের ছবি সরানোর জল্পনা শুনে রাতে সৌরভ আনন্দবাজারকে বলেন, ‘আমরা এখনও এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিইনি। কাল ফের এই নিয়ে আলোচনায় বসব। তার পরে সিদ্ধান্ত নেব।’ মুম্বইয়ের ক্রিকেট ক্লাব অফ ইন্ডিয়া ইমরান খানের ছবি ঢেকে যে প্রতিবাদ শুরু করে, তা অনুসরণ করে পঞ্জাব, রাজস্থান ও হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট সংস্থা। এ দিন বিদর্ভ ক্রিকেট সংস্থাও নাগপুর স্টেডিয়াম থেকে সরিয়ে দিল ইমরান খান, জাভেদ মিয়াঁদাদ-সহ আরও কয়েক জন পাক ক্রিকেটারের ছবি। এ বার সিএবি-ও সেই পথে পা বাড়ায় কি না, সেটাই দেখার। 

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: