জামালপুরে পাসপোর্ট দালাল সেই কোটিপতি মতি গ্রেপ্তার

১৩ মার্চ, ২০১৯ ০৯:৫০:৫৬

ছবি: ইন্টারনেট

জামালপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের চিহ্নিত দালাল মতিউর রহমান ওরফে ‘মতি মামা’সহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে জামালপুর সদর থানা পুলিশ। আজ মঙ্গলবার বেলা দেড়টার দিকে শহরের কাছারিপাড়ায় জামালপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গত বছরের ৩ মে দৈনিক কালের কণ্ঠে ‘জামালপুরে পাসপোর্ট দালালি, কোটিপতি মতি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হলেও পাসপোর্ট অফিসকে ঘিরে চিহ্নিত দালাল মতিউর রহমানসহ অন্যান্য দালালদের দৌরাত্ম্য অব্যাহত থাকে। দেখতে অনেকটা সাদামাটা হলেও জামালপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে শুরু করে ঢাকা কেন্দ্রীয় পাসপোর্ট অফিস এবং সংশ্লিষ্ট পুলিশ বিভাগে মতিউর রহমানের হাত খুব লম্বা। যত নজরদারিই থাকুক না কেন তার হাতে পড়া পাসপোর্টের আবেদন পাস হতে একটা হাতের তুড়ির মতোই যাদুকরি ব্যাপার। আর তার হাত ধরে স্থানীয় কিছু যুবকের প্রতিদিনের নগদ কাঁচা টাকা উপার্জনের উপায় হওয়ায় তাদের কাছে তিনি ‘মতি মামা’ নামে খুবই পরিচিত। পাসপোর্ট অফিসের আশপাশের এলাকায়ও রয়েছে তার বেশ নাম ডাক।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জামালপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসকে ঘিরে গড়ে উঠা দালালচক্রের মূলহোতা ও সদস্যদের গ্রেপ্তারে জামালপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল আজ মঙ্গলবার দুপুরে সেখানে ঝটিকা অভিযান চালায়। বেলা দেড়টার দিকে জামালপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের চিহ্নিত দালাল মতিউর রহমান (৩৮) এবং তার সহযোগী আল কালামকে (২৫) গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার মতিউর রহমান জামালপুর শহরের কাছারিপাড়ার মো. ময়েজ উদ্দিন আকন্দের ছেলে। আল কালাম একই এলাকার আবুল কালাম আজাদের ছেলে। তাদের বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাঁধাদান ও পাসপোর্ট অফিসে দালালির নামে হয়রানির অভিযোগ এনে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ছালেমুজ্জামান এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতেই পাসপোর্ট অফিসের চিহ্নিত দালাল মতিউর রহমানসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদেরকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পাসপোর্ট অফিসে দালালদের হয়রানি বন্ধে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’ সূত্র: কালেরকন্ঠ।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: