সৌদির হাসপাতালে পাঁচ মাস পড়ে আছে আকলিমার লাশ

১৩ মার্চ, ২০১৯ ১০:২৮:০০

ছবি: ইন্টারনেট

সৌদি আরবের জিযানস্থ আহাদ আল-মাসারেহা শহরে হাসপাতালে প্রায় পাঁচ মাস ধরে পড়ে আছে ভোলার মেয়ে আকলিমা বেগমের মৃতদেহ। পরিবার তার মৃতদেহ দেশে আনার জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগে এভাবে পাঁচ মাস ধরে চেষ্টা চালানোর পরও মৃতদেহ ফেরত পাওয়ার ব্যাপারে কোনও অগ্রগতি না হওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছে পরিবার।

লাশটি যেন দ্রুত দেশে আনার ব্যবস্থা করা হয় সেজন্য সরকারের কাছে আবারও আবেদন জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

সৌদি আরবের জিযানস্থ আহাদ আল-মাসারেহা শহরে গত বছরের ২২ অক্টোবর আকলিমার মৃত্যু হয়। জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কলস্যুলেট জেনারেল অফিসকে তার নিয়োগ কর্তা জানান, আকলিমা আত্মহত্যা করেছেন। কনস্যুলেট থেকে বিষয়টি জানতে সংশ্লিষ্ট থানায় যোগাযোগ করা হলে কর্মকর্তারা জানান, তার অস্বাভাবিক মৃত্যু হওয়ায় তদন্ত চলছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে লাশ পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু পাঁচ মাস পেরিয়ে গেলেও আকলিমার লাশ দেশে পাঠানো হয়নি। কি কারণে লাশ পাঠাতে বিলম্ব হচ্ছে তাও পরিষ্কার নয়।

আকলিমার বাড়ি ভোলা সদরের পাঙ্গাশিয়া গ্রামে। দরিদ্র বাবা-মা, ভাই-বোনের মুখে হাসি ফেরাতে সৌদি আরব গিয়েছিলেন তিনি।

আকলিমার বাবা শাহ আলম মোল্লা জানান, মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। এখনও তার লাশটা দেখতে পারলাম না। সরকারের কাছে আবেদন লাশটি যেন দ্রুত দেশে আনার ব্যাবস্থা করা হয়। এছাড়া ক্ষতিপূরণ আদায় করে দেয়ার জন্যও সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

বিডি২৪লাইভ/এসএএস

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: