প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

শাহাদাত হোসেন রাকিব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলা, গৃহায়ণ মন্ত্রীর নিন্দা

১৫ মার্চ, ২০১৯ ১৪:৫২:০৫

ছবি: ইন্টারনেট থেকে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদসহ দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নিন্দা জা‌নি‌য়ে‌ছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল ক‌রিম।

এছাড়াও হামলায় হতাহ‌তের ঘটনায় মন্ত্রী গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ ক‌রে‌ছেন বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের জনসং‌যোগ কর্মকর্তা ‌মোঃ ইফ‌তেখার হো‌সেন।

তিনি জানান, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী নিহত‌দের আত্বার শা‌ন্তি কামনা ক‌রেছেন এবং তাদের প‌রিবা‌রের সদস্য‌দের প্র‌তি গভীর সম‌বেদনা জ্ঞাপন ক‌রে‌ছেন।

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে জুমার নামাজের সময় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় এক বন্দুকধারীসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। এ সময় বন্দুকধারীর ব্রাশ ফায়ারে নিহত হয়েছেন দুই বাংলাদেশিসহ ৪০ জন। ঘটনার পর ওই স্থান থেকে কয়েকটি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

নিউজিল্যান্ড ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম স্টাফ এক প্রতিবেদনে হামলার পরবর্তী মুহূর্তের একাধিক ছবি প্রকাশ করেছে। সেখানকার একটি ছবিতে দুই মুসলিম ব্যক্তিকে রক্তমাখা পোশাকে নামাজ পড়তে দেখে গেছে।

এদিকে হামলাকারীর কাছে একটি বড় বন্দুক ও কয়েকশ রাউন্ড গুলি ছিলো। তিনি গায়ে মিলিটারিদের মতো পোশাক পরে ছিলেন বলে জানিয়েছেন হামলার সময় আটকে পড়া এক ব্যক্তি। প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘তিনি (বন্দুকধারী) ভিতরে ঢুকলেন এবং মসজিদের সবাইকে শ্যুট করা শুরু করলেন। তিনি আরও জানান, কমপক্ষে ৫০ বার গুলি ছুঁড়েছেন তিনি। তার সঙ্গে একাধিক ম্যাগজিন ছিলো। কয়েকশ রাউন্ড হতে পারে।

তিনি আরও জানান, হামলাকারী মাথায় হেলমেট থাকায় তার সম্পূর্ণ চেহারা দেখতে পারেননি তিনি।

হাতের রক্ত কাপড় দিয়ে আটকে তিনি আরও জানান, হামলার সময় মসজিদের একটি গ্লাস হাত দিয়ে ভেঙ্গে তিনি পালিয়ে আসতে সক্ষম হন। এ সময় গ্লাসের সঙ্গে লেগে তার হাত কেটে যায়।

নিজের অভিজ্ঞতার কথা ব্যক্ত করতে গিয়ে ওই প্রত্যক্ষদর্শী আরও বলেন, ‘আমার জানালা ও দরজার গ্লাস ভেঙ্গে সবাইকে বের করতে হয়েছিলো। আমরা চেষ্টা করছিলাম, যেভাবেই হোক সবাইকে এই এলাকা থেকে দৌড়ে দূরে পাঠানোর। কিন্তু আমরা সবার জন্য দরজা খুলতে পারিনি।’

নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সময় শুক্রবার দেড়টার দিকে মসজিদে হামলার ঘটনাটি ফেসবুকে লাইভও করেন অস্ট্রেলিয়া থেকে আসা ২৮ বছর বয়সী ওই শ্বেতাঙ্গ হামলাকারী। ক্রাইস্টচার্চে ভিডিওটি অনলাইনে না ছড়াতে নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ। ইতিমধ্যে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি সরিয়ে নেওয়ার কাজ করছে পুলিশ।

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: