প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলা: শোকাহত বাংলাদেশ

১৫ মার্চ, ২০১৯ ১৮:১১:০০

ছবি: ইন্টারনেট থেকে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে হামলায় হতাহতের ঘটনায় শোকাহত পুরো বাংলাদেশ। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোক প্রকাশ করেছেন।

এছাড়াও কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করীম, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদসহ অনেকেই শোক প্রকাশ করেছেন।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) দুপুরে জুমার নামাজ পড়ার সময় শেতাঙ্গ সন্ত্রাসীর বন্দুক হামলায় ৪৯ জন মুসল্লি নিহত হয়। হামলায় কমপক্ষে ২০ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

এদিকে, নিহত হওয়াদের মধ্যে দু’জন বাংলাদেশিও রয়েছেন। তাদের মধ্যে একজনের নাম ডা. সামাদ আজাদ ও অপর জনের নাম হোসনা। নিহত দুজনই ক্রাইস্টচার্চে বহু বছর ধরে বসবাস করে আসছিলেন।

ঘটনার পর থেকেই আরও কয়েকজন বাংলাদেশি নিখোঁজ বলে জানা গেছে। তবে তাঁদের পরিচয় জানা যায়নি।

নিউজিল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, মসজিদে হামলাকারীর নাম ব্রেনটন টারেন্ট। তিনি অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। হামলার আগে তিনি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে লাইভে যান। একই সঙ্গে ৭৩ পৃষ্ঠার লিখিত কর্মসূচি অনলাইনে প্রকাশ করেন।

হামলার সময় মসজিদটির খুব কাছেই ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের কয়েকজন সদস্য। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান তারা।

জুমার নামাজ আদায় করতে মসজিদে ঢোকার মুখেই অজ্ঞাত এক নারীর কাছ থেকে হামলার সতর্কবার্তা পান ক্রিকেটাররা। এরপরই সেখান থেকে দ্রুত সরে পড়ে কোনরকমে বেঁচে ফিরেছেন তামিম, মিরাজ, তাইজুলরা।

নিউজিল্যান্ডের কাউন্টার টেররিজম পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত করছে। এ হামলার ঘটনায় এক বন্দুকধারীসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

এ ঘটনার নিন্দা প্রকাশ করে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা অ্যারডের্ন বলেছেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে নজিরবিহীন সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলার জায়গা নেই। ক্ষতিগ্রস্ত অনেকে নিউজিল্যান্ডের অভিবাসী সম্প্রদায়ের। নিউজিল্যান্ডেই তাঁদের বাড়ি। তাঁরা আমাদের লোক।’

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: