প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

১২ টাকার ইনজেকশন ১০০০ টাকা!

১৯ মার্চ ২০১৯ , ১২:৩০:০১

ছবি: ইন্টারনেট

রক্তচাপ কম থাকলে রোগীকে ইফিড্রিন ইনজেকশন পুশ করা হয়। ইনজেশনটির দাম মাত্র ১২ টাকা। অজ্ঞাত কারণে ইনজেকশনটি বরিশালের ফার্মেসিগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে না। এ সংকটের সুযোগ নিয়ে এক ফার্মেসি মালিক এক হাজার টাকায় ইনজেকশনটি কিনতে বাধ্য করেছেন রোগীর স্বজনকে।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ ঘটনায় জেলা প্রশাসকের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ফার্মেসি মালিককে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেছেন। তার আগে জেলা প্রশাসকের দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন রোগীর স্বজন মো. রুবেল হাওলাদার।

অভিযুক্ত ব্যবসায়ী হচ্ছেন নগরীর ইসলামিয়া হাসপাতালের সামনে অবস্থিত 'মেডিসিন কর্নার' ফার্মেসির মালিক মনিরুল ইসলাম।

এদিকে জরিমানার প্রতিবাদে বিকেলে এক ঘণ্টা বরিশাল শের-ই -বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে সকল ওষুধের দোকান বন্ধ রাখে বিক্রেতারা।

বরিশাল জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জয়দেব চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সোমবার দুপুরে রুবেল হাওলাদার নামের এক ব্যক্তি তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। তিনি বিকেল সাড়ে ৩টায় অভিযানে যান। অভিযোগের সত্যতা মেলায় মালিক মনিরুল ইসলামকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

রোগীর স্বজন রুবেল হাওলাদার বলেন, চিকিৎসক জরুরি ভিত্তিতে ওই ইনজেকশনটি আনতে বলেন। আমি অনেক দোকান ঘোরার পরও কোথাও না পেয়ে মেডিসিন কর্নার থেকে এক হাজার টাকায় কিনি। এত দেরি হওয়ার কারণ জানতে চাইলে চিকিৎসককে সবকিছু খুলে বলি।

এসময় চিকিৎসক জানান, এই ইনজেকশনের দাম মাত্র ১২ টাকা। তিনি বিষয়টি জেলা প্রশাসকের দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিতে পরামর্শ দেন।

হরুবেল হাওলাদার জানান, মেডিসিন কর্নারে ইনজেকশনটি পাওয়ার পর মালিক মনিরুল ইসলাম এক হাজার টাকা দাম চান। এত দামের কারণ জানতে চাইলে তিনি ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, নিলে নেন, নইলে চলে যান।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: