প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

দায়িত্বে ছিলেন ৪১ জন, ভোটও পড়েছে ৪১টি!

১৯ মার্চ ২০১৯ , ০৮:১৬:১৯

ছবি: প্রতীকী

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে মৌলভীবাজার পৌর এলাকার কাশীনাথ আলাউদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে মোট ভোট পড়েছে ৪১টি। নয়টি বুথের মধ্যে আটটি বুথে এই ভোট পড়েছে। এ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ছিল দুই হাজার ৯৯৭ জন।

জানা যায়, সোমবার (১৮ মার্চ) এ কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার, আনসার ও পুলিশ সদস্য মিলে দায়িত্বে ছিলেন ৪১ জন। আলাদাভাবে প্রার্থীর এজেন্টের দায়িত্ব পালন করেন ২১ জন।

এই কেন্দ্রে মোট ভোট পড়েছে ৪১টি। নয়টি বুথের মধ্যে আটটি বুথে এই ভোট পড়েছে। বর্ষিজোড়া ও শমসের নগর সড়ক দক্ষিণ এলাকার মানুষ ভোট দিতে না আসায় একটি বুথে কোনো ভোটই পড়েনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার নীলাদ্রি শেখর দাশ জানান, ভোট কম হওয়ায় গণনায় বেশি সময় লাগেনি। বিকেল সোয়া ৫টার দিকে গণনার কাজ শেষ হয়ে যায়।

এদিকে মৌলভীবাজার পৌর এলাকা ও কমলগঞ্জ উপজেলার ১৫টি কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে ভোটারদের দীর্ঘ সারির কোনো দৃশ্য চোখে পড়েনি। কেন্দ্রগুলো হচ্ছে মৌলভীবাজার পৌর এলাকার হাফিজা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, গোবিন্দশ্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদ্রাসা, মৌলভীবাজ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, কাশীনাথ আলাউদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাজার সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়, শাহ মোস্তফা কলেজ ও বড়কাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সদর উপজেলার জগন্নাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহারমর্দন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মোস্তফাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কমলগঞ্জ উপজেলার দেওড়াছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মহেন্দ্র কুমার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কালেঙ্গ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও প্রতাপী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি ছিল একেবারে নগণ্য। অনেক কেন্দ্রে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা কেন্দ্রের ভেতর অলস সময় ও নিদ্রাচ্ছন্ন অবস্থায় কাটাতে দেখা যায়।

জেলার সাত উপজেলার ৫১৬টি কেন্দ্রে কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। চেয়ারম্যান পদে ২০ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩৫ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৮ জনসহ মোট ৮৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

রাজনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আছকির খান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শাজাহান খানের বিরুদ্ধে কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেন। এ উপজেলায় একজন ভাইস চেয়ারম্যানও নির্বাচন বর্জন করেছেন।

নির্বাচন ঘিরে দুই হাজার পুলিশ, ছয় হাজার আনসার, ১৮ প্লাটুন বিজিবি দায়িত্ব পালন করে।

চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী যারা

বিকেল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষে ভোট গণনা শুরু হয়। এরপর ফলাফল ঘোষণা শুরু হয়। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছেন বড়লেখা উপজেলায় সুয়েব আহমদ, জুড়ীতে এম এ মুহিদ ফারুক, কুলাউড়ায় অধ্যক্ষ এ কে এম শফি আহমদ সলমান ও রাজনগরে শাহাজান খান।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছেন কমলগঞ্জ উপজেলায় অধ্যাপক রফিকুর রহমান ও শ্রীমঙ্গলে রনধীর কুমার দেব। এর আগে মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগের কামাল হোসেন।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: