প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

দ্রুততম সময়ে জবাব

এফ-১৬ যুদ্ধবিমান মোকাবেলায় জরুরি ভিত্তিতে ক্ষেপণাস্ত্র চায় ভারতীয় বিমানবাহিনী

২১ মার্চ ২০১৯ , ০৯:১৮:০০

আইএএফের যুদ্ধবিমানের মহড়ার দৃশ্য। ছবি: ইন্টারনেট থেকে

জরুরি ভিত্তিতে ক্ষেপণাস্ত্র কেনার জন্য ভারত সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দেশটির বিমান বাহিনী। ভারতীয় একটি দৈনিক এবং রাশিয়ার একটি গণমাধ্যম এ খবর দিয়েছে।

সেখানে বলা হয়, ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর সীমান্তের কাছাকাছি পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের গোটা বহর মোতায়েনকে কেন্দ্র করে ভারতীয় বিমান বাহিনীর টহল বেড়ে গেছে। আকাশ যুদ্ধে ব্যবহার যোগ্য ক্ষেপণাস্ত্রসহ সব ধরণের সমরাস্ত্রে পুরোপুরি সজ্জিত হয়ে এসব টহল দেয়া হয়।

ভারতের সরকারের শীর্ষ সূত্র থেকে বলা হয়েছে, এসব ক্ষেপণাস্ত্রের আয়ু সীমিত। এগুলো যখন বাক্সবন্দি হয়ে থাকে তখন বছর গুণে আয়ুর হিসাব করা হয়। কিন্তু যুদ্ধবিমানে টহল দেয়ার জন্য এসব ক্ষেপণাস্ত্র বহন করা হলে তাতে ক্ষেপণাস্ত্রের খোল বা শেলের আয়ু কমে যায়। কতবার টহল দেয়া হয়েছে তার ওপর নির্ভর করে ক্ষেপণাস্ত্রের আয়ু। এ অবস্থায়, ভারতীয় বিমান বাহিনীকে বিশেষ করে আকাশ থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র দ্রুত যোগান দিতে হবে।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের সঙ্গে আকাশ যুদ্ধকে কেন্দ্র করে ভারতীয় বিমান বাহিনী উচ্চ সতর্কাবস্থায় বজায় রেখেছে। এছাড়া, সীমান্তের দুই পাশেই বিমান বাহিনী তৎপরতা অনেক বেড়ে গেছে। বিশেষ করে রাতের টহল তৎপরতা বেড়েছে।

এদিকে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু এবং কাশ্মিরেও যুদ্ধবিমানের শক্তি বাড়ানো হয়েছে।

দ্রুততম সময়ে জবাব দেওয়ার প্রয়োজনকে সামনে রেখে ভারতের অগ্রবর্তী অবস্থানে প্রস্তুত রাখা হয়েছে আইএএফ যুদ্ধবিমান বহর। এসব যুদ্ধবিমানের মধ্যে রয়েছে সুখোই-৩০এমকেআই এবং মিরেজ-২০০০। পার্সটুডে খবর।
 
পাকিস্তানের বালাকোটে হামলার পরদিন ভারতের বিরুদ্ধে আকাশযুদ্ধে এফ-১৬ ব্যবহারের বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শলা-পরামর্শ করেছে ভারত। আর তাতেও ভারত সীমান্তে পাকিস্তানের এফ-১৬ মোতায়েন ঠেকানো যায় নি এবং ফলে অস্বস্তি বোধ করছে ভারত।

বিডি২৪লাইভ/টিএএফ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: