প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

হতাশ হবেন না আমরা জয়ী হব: ফখরুল

২৩ মার্চ ২০১৯ , ০২:৪৩:৫৭

ছবি: নিজস্ব

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কখনও হতাশ হবেন না হতাশ হওয়ার প্রশ্নই আসে না। আমরা জয়ী হব। এদেশের মানুষ জয়ী হবে।

আজ শনিবার (২৩ মার্চ) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে কবি আল মাহমুদের মৃত্যুতে শোক সভায় তিনি এ সকল কথা বলেন। এই শোক সভার আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী সামাজিক সংস্কৃতিক সংস্থা-জাসাস।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা জয়ী হব। এই বোধ আনতে হবে। এই বোধ না আনতে পারলে আমরা সফল হতে পারব না

তিনি আরও বলেন,‘কখনও হতাশ হবেন না হতাশ হওয়ার প্রশ্নই আসে না আমরা জয়ী হব। এ দেশের মানুষ জয়ী হবে। যে রাজনীতি মানুষের কথা বলে কৃষকের কথা বলে। যে রাজনীতি এই মাটির কথা বলে। যে রাজনীতিতে মানুষের গন্ধ পাই সে রাজনীতি কখনও পরাজিত হতে পারে না।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি সবসময় বলি আমরা কঠিন সময় পার করছি সময়টা কঠিন। এটা কঠিন সময় কিন্তু সহজ সময় হয়ে আসবে যদি আমরা সবাই মনে করি হা আমরা পারব। আমরা এটা করতে পারি আমরা এই নৈরাজ্যকে দূর করতে পারব আমাদের বুকের উপর যে পাথর আছে সে পাথর সরাতে পারব। আমরা যদি আমৃত্যু মৃত্যু সংগ্রাম লড়াই করতে থাকি তাহলে আমরা অবশ্যই পারব।

তিনি আরও বলেন, আজকে সারা বাংলাদেশটাকে কারাগারে পরিণত করেছে। সমগ্র বাংলাদেশের মানুষের অধিকার তারা কেড়ে নিচ্ছে। আজকে কবিকে কারাগারে নেয়া হচ্ছে। কবি সাহিত্যিককে কারাগারে পাঠায়। শিল্পী সাংবাদিককে কারাগারে পাঠায়। কেউ ভিন্নমত পোষণ করলে তাদের ওপর নির্যাতন নেমে আসে।

ফখরুল বলেন, কিছুদিন পূর্বে পৃথিবীর বিখ্যাত সাহিত্যিক অরুন্ধতী রায় ভিন্নমতের একজন লেখক তিনি ঢাকায় এসেছিলেন বক্তব্য রাখার জন্য যে বক্তব্য রাখার কথা ছিল সেটা বন্ধ করে দিয়েছিল। এরপর যেখানে গিয়েছিল সেখানে বন্ধ করে দেয়ার চেষ্টা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত কিছুটা ভয় পেয়ে বক্তব্য দিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমার প্রশ্ন এই জায়গায় যারা আজকে ভিন্নমত সহ্য করতে পারে না যাদের মধ্যে নূন্যতম সহনশীলতাটুকু নাই তারা গণতন্ত্রের কথা বলবে কেন? সরাসরি ইন নর্থ কোরিয়ার কিম এর মত বলা উচিত যে আমি এক দলীয় শাসন বিশ্বাস করি, আমি যা বলব সেটাই আইন; এ কথা বললেই তো হয়ে যায়। একটা ছদ্মবেশ ধারণ করে মানুষকে বিভ্রান্ত করে প্রতারণা করে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা পুরোপুরি চালু করেছে।’

এ সময় আরও বক্তব্য দেন- গীতিকার ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ার, নয়া-দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, কবি আব্দুল হাই শিকদার, জাসাসের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. আবুল হোসেন প্রমুখ।

বিডি২৪লাইভ/এমই/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: