ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ড, শিক্ষার্থীকে বাস থেকে ফেলে হত্যা

২৩ মার্চ, ২০১৯ ২০:১৩:৪০

ছবি: প্রতীকী

বাস ভাড়াকে কেন্দ্র করে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত ওই শিক্ষার্থীর নাম ওয়াসিম। তার বয়স আনুমানিক ২২ বছর।

শনিবার (২৩ মার্চ) বিকেল ৫টার দিকের এ ঘটনায় আহত হন আরও এক ছাত্র। ওয়াসিমের বাড়ি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের রুদ্রগ্রামে।

জানা যায়, শনিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ বন্ধুকে নিয়ে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ফিরছিলেন ওয়াসিম। ময়মনসিংহ থেকে আসা সিলেটগামী উদার পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন তারা। বাসের কন্ট্রাক্টর ও তাদের মধ্যে ভাড়া নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ক্ষীপ্ত হয়ে হেলপার ওই শিক্ষার্থীকে ধাক্কা দিলে বাস থেকে পড়ে যায় এবং পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়।

আহত হন রাকিব নামের আরেক ছাত্র। গুরুতর আহত ওয়াসিমকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিডি২৪লাইভকে শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, ‘আমি ঘটনাটি শুনেছি। নিহত ওই শিক্ষার্থীর নাম ওয়াসিম বলে জেনেছি। তবে ঘটনাটি আমার এলাকার মধ্যে পড়ে না।’

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নিহত ওয়াসিমের লাশ সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে রাজধানীর প্রগতি সরণিতে বেপরোয়া বাসচাপায় নিহত হয় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরীর (২০)।

এ ঘটনার পরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। টানা দুদিন চলে এ বিক্ষোভ। এ সময় তারা ৮ দফা দাবিতে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। তাদের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রভাত ও জাবালে নূর পরিবহনের রুট পারমিট বাতিল করে চলাচল বন্ধ রাখা হয়। বুধবার দ্বিতীয় দিন সন্ধ্যায় আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীরা কর্মসূচি ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করে।

শিক্ষার্থীদের এসব দাবির বিষয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, দাবি যেগুলো পূরণ করা সম্ভব সেগুলো করা হবে। বাকিগুলো ধীরে ধীরে করা হবে।

বিডি২৪লাইভ/আরআই

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: