প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

আসিফ আকবরের স্মৃতিতে শাহনাজ রহমতুল্লাহ

২৪ মার্চ ২০১৯ , ১০:৪২:৪১

ছবি: ইন্টারনেট থেকে

দেশ বরেণ্য সংগীতশিল্পী শাহনাজ রহমতউল্লাহকে রোববার (২৪ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর বনানীতে সম্মিলিত সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে দাফন করা হবে। এর আগে বাদ জোহর বারিধারার ৯ নম্বর রোডের পার্ক মসজিদে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এমনটাই জানালেন শাহনাজ রহমতউল্লাহর ননদ নাহার আবেদ।

বাংলা গানের যুবরাজ আসিফ আকবরের সাথে তাঁর সুসম্পর্ক ছিলো। তাদের মধ্যে বেশ হৃদ্যতাও ছিলো। তাঁর এই প্রয়াণে শোবিজ অঙ্গন শোকে মুহ্যমান। তাঁর সঙ্গে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আসিফ আকবর তার সামাজিক মাধ্যমে লিখেন,

টরন্টো থেকে প্যান্সিলভ্যানিয়া , নিউ জার্সি থেকে নিউইয়র্ক। দীর্ঘ ভ্রমণ শেষে হোটেলে আমার রুমে ঢুঁকেই দেখলাম আপা কোনের একটা সোফায় বসে আছেন। হতচকিত হয়ে জিজ্ঞেস করলাম আপা আপনি আমার রুমে! তিনি অসন্তুষ্ট আয়োজকদের উপর। রাগ সব আমার উপরেই ঝাড়লেন, আমি থাকতে আপার রুমে আরেকজন এর সাথে রুম শেয়ারিং কেনো ? তাড়াতাড়ি আপার জন্য আলাদা রুমের ব্যবস্থা করা হলো।

আপার ৫০তম বিয়ে বার্ষিকীতে সর্বকনিষ্ঠ দাওয়াতি আমি। হাদী ভাই, রবিন ঘোষ স্যার থেকে শুরু করে দেশের মহারথীদের মিলন মেলা । আপা ঘুরে ফিরে আমাকেই সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছিলেন। আমাদের বিশেষ কিছু শো একসাথে ছিল। আপা আমাকে আসিফ নামেই ডাকতেন, তবে উচ্চারণটা ছিলো আলাদা।

তিনি আরও লিখেন, আপা অনেক কিছু লিখতে ইচ্ছে হচ্ছে। তবে এই লিখার শেষ নেই আপা। আগের প্রজন্মের শেষ বংশধর হিসেবে আপনার কাজ এবং সৃষ্টির প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করি 'একবার যেতে দেনা আমার ছোট্ট সোনারগাঁয়'। নামাজ পড়ার সময় এই মহান মৃত্যুকে স্বাগতম আপা! যান আপা ওখানে অনেক শান্তি অপেক্ষায়! বিদায় শাহনাজ রহমতুল্লাহ! আপনিই বাংলাদেশ আপা, মহান আল্লাহ আপনার আত্মাকে শান্তি দিন! আমীন ...

শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় শাহনাজ রহমতউল্লাহ বাড়িধারার নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। স্বামী মেজর (অব.) আবুল বাশার রহমতউল্লাহ ব্যবসায়ী, মেয়ে নাহিদ রহমতউল্লাহ থাকেন লন্ডনে আর ছেলে এ কে এম সায়েফ রহমতউল্লাহ যুক্তরাষ্ট্রের এক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করে এখন কানাডায় থাকেন।

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: