একসঙ্গে ১২ হাজার শিক্ষার্থীর বিয়ে!

২৫ মার্চ, ২০১৯ ১৯:২৬:৪১

ছবি: ইন্টারনেট

উৎসব কিংবা দিবস। এই বিষয়গুলো উদযাপন করি আমরা আমাদের রীতি অনুযায়ী। আর এসব উৎসব কিংবা দিবস দেশব্যাপী উদযাপিত হলেও ভিন্ন আয়োজন দেখা যায় দেশের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে।

তবে বিয়ে নিয়ে উৎসব! এটা একেবারের ভিন্ন প্রসঙ্গ। কিন্তু এই প্রসঙ্গটিই সবচেয়ে বেশি সাড়া ফেলেছে ইসলামী প্রজাতান্ত্রিক দেশ ইরানে। ইরানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবছর ১১ মার্চ জাঁকজমকপূর্ণভাবে দিনটি উদযাপন করা হয়।

তবে আসল ঘটনাটি ‘বিয়ে উৎসব’-এ যে বিষয়টি আপনার নজর কাড়বে তা হলো বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বিয়ে করার হিড়িক। প্রতিবছর এই উৎসবে দেশটির কয়েক হাজার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

‘জান্নাত পর্যন্ত সহযাত্রী’- এ স্লোগান সামনে নিয়ে এবারও তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে বিবাহ উৎসব অনুষ্ঠান শুরু হয়। এবারের উৎসবটি ছিল ২২তম। এই উৎসবে এবার সাড়া ফেলে রেকর্ড সংখ্যক শিক্ষার্থীদের বিবাহ।

ইরানের সংবাদমাধ্যম পার্সটুডে নিউজের এক খবরে বলা হয়েছে, গত ১১ মার্চ এই উৎসবে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০০ শিক্ষার্থীসহ দেশটির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী একসঙ্গে শুভ পরিণয়ে নিজেদেরকে আবদ্ধ করেন।

১৯৭৯ সালে ইরানে ইসলামী বিপ্লবের পর দেশটিতে আলেম সমাজ তারুণ্যের নৈতিক উন্নতির প্রতি বিশেষ নজর দেন। যার ফলস্বরূপ বিগত প্রায় দুই যুগ ধরে এ ধরনের ‘বিবাহ উৎসব’ চলে আসছে। সাধারণত ইরানের সর্বোচ্চ নেতার অফিস ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অর্থায়নে প্রতি বছর এ ‘বিবাহ উৎসবের’ আয়োজন করা হয়ে থাকে।

আধুনিক শিক্ষাব্যবস্থা অবিবাহিত ছেলেমেয়েদের পরস্পরের কাছাকাছি আসার অনেক সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। এখানে পরস্পর চিন্তাবিনিময়ের সুযোগ ঘটছে; যেসব বিষয়কে একটি ছেলে বা মেয়ে গুরুত্ব দেয়, তার ভিত্তিতেই অপরজনকে পছন্দ করার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। তবে ইসলামিক প্রজাতন্ত্রে দেশটির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীদের প্রতিবছর বিয়ে করার এমন হিড়িক বেশ সাড়া ফেলেছে।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: