প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

ভোগান্তি কমাতে এ উদ্যোগ নিয়েছে ইসি

২০ এপ্রিল থেকে হারানো এনআইডি মিলবে ৬৪ জেলায় 

১৫ এপ্রিল ২০১৯ , ০৬:১৮:৩৮

ছবি: ইন্টারনেট

দেশের ৬৪টি জেলার নির্বাচন আফিস থেকে হারানো জাতীয় প্ররিচয়পত্র (এনআইডি) মুদ্রণের উদ্যোগ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নাগরিক ভোগান্তি কমাতে আগামী ২০ এপ্রিল থেকে এ কার্যক্রম শুরু করতে চায় সাংবিধানিক এ প্রতিষ্ঠানটি।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের সহকারী পরিচালক আরাফাত আরা স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত্র একটি চিঠি জারি করে নির্বাচন কমিশন। চিঠিটি ৬৪ জেলার নির্বাচন কফিস ও থানা নির্বাচন আফিসার বরাবর পাঠানো হয়।

চিঠিতে বলা হয়, জাতীয় পরিচয়পত্র সেবা ভোটারদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে গত ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের মাসিক সমন্বায় সভায় হারানো জতীয় পরিচয়পত্র পুনঃমুদ্রণ সংক্রান্ত কার্যক্রম পার্বত্য চট্টগ্রামের ৩ জেলাসহ দেশের সব জেলাসমূহে বিকেন্দ্রীকরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে কানেকটিভিটি স্থাপনসহ প্রয়োজনীয় সকল কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। 

বর্তমানে ৬৪ জেলার সঙ্গে ইসির কানেক্টিভিটি সম্পন্ন হয়েছে। ইতোপূর্বে প্রতিটি জেলায় ২টি করে প্রিন্টার, লেমনেটিং মেশিন ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি ক্রয় করা হয়েছে। এ কারণে আগামী ২০ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ হতে সকল জেলা নির্বাচন অফিস হতে হারানো জাতীয় পরিচয়পত্র পুনঃমুদ্রণ বিতরণ করার জন্য অনুরোধ করেছে নির্বাচন কমিশন। 

সূত্র জনায়, ঢাকায় জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের ওপর থেকে চাপ কমাতে হারানো জাতীয় পরিচয়পত্র জেলা নির্বাচন আফিসে ছাপানো হবে। সেক্ষেত্রে জেলা সার্ভার স্টেশনগুলোর সঙ্গে ঢাকার হেড অফিসের মধ্যে সরাসরি সংযোগ স্থাপন করা হবে। বর্তমানে শুধু ঢাকায় হারানো বা নষ্ট হয়ে যাওয়া কার্ড প্রিন্ট দেয়া হয়। ফলে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলন করতে ঢাকায় আসতে হয় সাধারণ নাগরিকদের। নতুন উদ্যোগের ফলে জেলা নির্বাচন অফিসে এই সেবা পাওয়া যাবে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, বর্তমানে কার্ড হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হলে থানায় সাধারণ ডায়েরির (জিডি) অনুলিপির সঙ্গে নির্ধারিত ফি জমা দিলেই বর্তমানে কেন্দ্রীয় অফিস থেকে কার্ড ছাপিয়ে দেয়া হয়। এটি এখন ঢাকার পাশাপশি জেলা শহরেও ছাপানো হবে। ফলে নাগরিকের ভোগন্তি কমবে।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: