প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

পাহারা দিচ্ছিল জালাল, ধর্ষণ করছিল জুয়েল!

১৯ এপ্রিল ২০১৯ , ০৬:৩৯:০০

ছবি: প্রতীকী

প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে এসে ১৪ বছরের এক কিশোরী প্রেমিকা ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের বিবির কান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ধর্ষিতার বড় ভাই বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে আড়াইহাজার থানায় মামলা করে। মামলার অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হলেন- প্রেমিক জুয়েল (২২) ও তার সহযোগী জালাল (২৪)।

আড়াইহাজার থানার এসআই বিজয় কৃষ্ণ মজুমদার গণমাধ্যমকে জানান, উপজেলার মেঘনাবেষ্টিত কালপাহাড়িয়া ইউনিয়নের বিবির কান্দী গ্রামের ১৪ বছরের এক কিশোরীর সঙ্গে একই গ্রামের সাজন মিয়ার ছেলে জুয়েল মিয়ার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিশোরীকে বিবিনকান্দি গ্রামের ফুফুর বাড়িতে রেখে তার বাবা-মা বেড়াতে যান। খবর পেয়ে ওই দিন রাতে ওই কিশোরীকে দেখা করার জন্য মোবাইল ফোনে অনুরোধ করেন জুয়েল। কিশোরী ঘর থেকে বেরুলে জুয়েলের বন্ধু বিবির কান্দি গ্রামের নায়েব আলীর ছেলে জালাল মিয়া তাকে পার্শ্ববর্তী একটি ঝোপের কাছে নিয়ে যায়। সেখানে কথা বলার এক পর্যায়ে জালালের পাহারায় জুয়েল ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে। দীর্ঘ সময় ঘরে না ফেরায় ওই কিশোরীর স্বজনেরা তাকে বাড়ির আশপাশে খোঁজ করতে থাকেন। পরে বাড়ির পাশের ঝোপের মধ্যে অজ্ঞান অবস্থায় পায়। জ্ঞান ফিরলে সে স্বজনদের সব ঘটনা খুলে বলে। বিষয়টি ধর্ষিতার পরিবার জুয়েল ও জালালের বাবা-মাকে জানালে তারা মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে এ ঘটনা কাউকে না জানাতে বলেন।

আড়াইহাজার থানার ওসি আক্তার হোসেন জানান, ঘটনাটি লোকমুখে জানান পর কালাপাহাড়িয়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ভিকটিমের পরিবারের সদস্যদের জবানবনন্দি নিয়ে বৃহস্পতিবার নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। জুয়েল ও তার সহযোগী জালালকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বিডি২৪লাইভ/এএস/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: