নতুন বছরে নতুন আঙ্গিকে স্যামসাং

১৯ এপ্রিল ২০১৯ , ১১:৪৩:০৩

ছবি: সংগৃহীত

বছর ঘুরে আবার এলো প্রাণের বৈশাখ। বাংলা নতুন বছরে সবকিছু যেনো নতুন রূপ নেয়। প্রকৃতি যেনো নতুন করে জানাতে চায় পরিবর্তনের কথা। নতুনকে বরণ করে নেয়ার মাঝেই যেনো অপার আনন্দ। নতুন কিছু কে না ভালোবাসে? নতুন কিছু পাওয়ার আকাঙ্খা, আগ্রহ, উদ্দীপনা সবার মনেই নাড়া দেয়, আর নতুন বছরে সেই আকাঙ্খা পূরণের আশায় বুক বাঁধে সবাই।

নতুন বছরকে কেন্দ্র করে প্রযুক্তি বিশ্ব অত্যাধুনিত সব পণ্য নিয়ে ব্যবসায়িক পরিকল্পনা করে। মূলত প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের আকাঙ্খা পূরণে সচেষ্ট থাকে প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। এই ধারণা মাথায় নিয়েই দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক টেক জায়ান্ট স্যামসাং সম্মানিত ক্রেতাদের জন্য নতুন গ্যালাক্সি এম ও গ্যালাক্সি এ সিরিজ বাজারে এনে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। বিশ্বখ্যাত স্যামসাং ব্র্যান্ডের আধুনিক ফিচারসম্বলিত স্মার্টফোন এত কম বাজেটে বাজারে আগে আসেনি। গ্যালাক্সি এম সিরিজের স্মার্টফোন দিয়ে যা করে দেখিয়েছে স্যামসাং। আধুনিক ও ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের লক্ষে সবার হাতে কম মূল্যে উন্নত ডিভাইস তুলে দেয়ার ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

অন্যদিকে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে, নতুন যুগের সূচনা করতে, নতুন প্রজন্মের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে নতুনভাবে গ্যালাক্সি এ সিরিজ নিয়ে হাজির হয়েছে স্যামসাং।
বাংলা নতুন বছরকে রাঙাতে স্যামসাংয়ের এই ফোনগুলোকে ইতিমধ্যে বাংলাদেশের মানুষ নতুন অতিথি হিসেবে বরণ করে নিয়েছে। এই সিরিজটির বিশেষত্বই হচ্ছে নতুন প্রজন্মের আকাঙ্খা তথা চাহিদা পূরণ। প্রযুক্তি যেমন নতুনভাবে, নতুন উদ্যোমে সবার সামনে হাজির হয়, ঠিক তেমনি গ্যালাক্সি এ সিরিজের আবির্ভাব ঘটেছে। আর তাই এই স্মার্টফোনটির জন্য ক্রেতাদের আগ্রহ চোখে পড়ার মতো। নতুন ও যুযোপযোগী সব ফিচার যুক্ত করে এই সিরিজের বর্তমান ও আসন্ন ডিভাইসগুলোকে বাংলা নতুন বছরের চমক হিসেবেই গণ্য করছে স্যামসাং।

পুরোনোকে ভুলে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ে স্যামসাং চেষ্টা করে বাংলার মানুষের জীবনের সঙ্গে মিশে যেতে। এ বাংলার মানুষ যা চায় তা শতভাগ পূরণ না করা পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যেতে কখনও দ্বিধাবোধ করে না এবং ভবিষ্যতেও করবে না প্রতিষ্ঠানটি। বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসায় দেশের সেরা মোবাইল ব্র্যান্ড এখন স্যামসাং, আর এই অবস্থান ধরে রাখতে প্রতিষ্ঠানটি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: