প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

জজ পরিচয়ে বিয়ে করতে গিয়ে ধরা যুবক, অতঃপর...

২০ এপ্রিল ২০১৯ , ০৭:০১:০০

ছবি: প্রতিনিধি

নিজেকে জজ পরিচয় দিয়ে বিয়ে করতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়লেন রাশেদুল ইসলাম সোহাগ (৩০) নামে এক যুবক। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) দিবাগত মধ্যরাতে ভালুকা উপজেলার পাড়াগাঁও গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। পরে আজ শনিবার (২০ এপ্রিল) তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেরারচালা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে রাশেদুল ইসলাম সোহাগ (৩০) তার বড় ভাই আসাদ ও ভাবিকে নিয়ে ঘটকের মাধ্যমে ভালুকা উপজেলার পাড়াগাঁও গ্রামের ছাইদুর রহমান রতনের মেয়ে রাবেয়া আক্তার শিফাকে (১৯) বিয়ে করার জন্য পাত্রী দেখতে আসেন।

এ সময় রাশেদুল ইসলাম সোহাগ নিজেকে সাতক্ষীরা জেলার সহকারী জজ পরিচয় দেয়। এতে কনে পক্ষের লোকজনের সন্দেহ হলে একই নামের সাতক্ষীরা জেলার সহকারী জজ এর মোবাইল নাম্বর সংগ্রহ করে তাঁর নাম্বারে যোগযোগ করেন।

এতে সোহাগ যে ভুয়া জজ তা বের হয়ে আসে। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু ভালুকা মডেল থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ঘটনায় ভালুকা মডেল থানার এসআই জহুরুল হক বাদী হয়ে প্রতারণার অভিযোগে একটি মামলা করেন।

জানা যায়, রাশেদুল ইসলাম সোহাগ একইভাবে জজ পরিচয় দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে গত বছর পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয় এবং তার বিরুদ্ধে একটি মামালা হয়।

সোহাগের বড় ভাই আসাদ জানান, তার ভাই সোহাগ উকালতি পাশ করে গজীপুর জজ কোর্টে উকিলের জুনিয়র হিসাবে কাজ করছেন। বিয়ের জন্য ভালুকায় এসেছিল।

ভালুকা মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার জানান, উপজেলার পাড়াগাঁও গ্রামে ভূয়া জজ সেজে বিয়ে করতে এসে আটক হওয়া ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এর আগেও এ ধরণের ঘটনায় গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: