প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ধর্ষণের ভিডিও করে স্কুলছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ! অতঃপর...

২০ এপ্রিল ২০১৯ , ১১:৫২:০০

ছবি: প্রতীকী

ময়মনসিংহের গফরগাঁয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিও করে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে হৃদয় (২৪) নামে এক বখাটের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই কিশোরী অপমান সহ্য করতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

গফরগাঁও উপজেলার ছয়বাড়িয়া গ্রামে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে ওই ছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঔ স্কুলছাত্রীকে চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গফরগাঁও থানা মামলা দায়ের করেছেন।

নির্যাতিতার পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, উপজেলার রাওনা ইউনিয়নের দরিদ্র রিকশাচালকের মেয়ে কালাইপাড়-জালেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীকে (১৪) একই গ্রামের জুয়েল মাঝির বখাটে ছেলে হৃদয় (২৪) বাড়িতে একা পেয়ে সম্প্রতি ধর্ষণ করে। এ সময় বখাটে হৃদয় গোপনে বন্ধুদের দিয়ে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে।

পরে এই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে আরও ঔ স্কুলছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে হৃদয়। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে বখাটে হৃদয় স্কুলছাত্রীর বাবা মাকে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র দেখিয়ে ঘটনাটি নিয়ে চুপ থাকতে বলে।

বৃহস্পতিবার সকালে আপত্তিকর ভিডিওটি ফেরত দেওয়ার কথা বলে বখাটে হৃদয় ও তার বন্ধু রাসেলসহ তিন যুবক ঔ স্কুলছাত্রীকে ফুসলিয়ে ছয়বাড়িয়া গ্রামের আতকা বিলের পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়।

ভিডিও ইন্টারনেটে ছাড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় স্কুলছাত্রীর ডাক চিৎকারে একজন কৃষক এগিয়ে এলে বখাটে হৃদয় ও তার সহয়োগিরা পালিয়ে যায়।

অপমান সইতে না পেরে ঔ স্কুলছাত্রী দুপুরে বাড়ি ফিরে বিষপান করে। বাড়ির লোকজন টের পেয়ে তাকে প্রথমে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং অবস্থার অবনতি হলে রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান জানান, নির্যাতিতা ছাত্রী ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

বিডি২৪লাইভ/এজে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: