প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

‘জনগণ ভোট না দিলেও আমি নির্বাচন করবো’

২১ এপ্রিল ২০১৯ , ১২:০৪:৪৩

ছবি: ইন্টারনেট থেকে

আরেফিন সোহাগ: হিরো আলম দেশের বহুল আলোচিত ভাইরাল ব্যক্তি এবং একজন অভিনেতা। যিনি ডিস ব্যবসা থেকে নিজেকে পরিচিত করেছেন দেশ এবং দেশের বাইরে। হিরো আলমকে নিয়ে যেন মানুষের কৌতুহলের শেষ নেই।

তেমনি আলম চায় সব সময় আলোচনায় থাকতে। এবার উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে চান তিনি।

রবিবার (২১ এপ্রিল) সকালে হিরো আলমের সাথে কথা হয় বিডি২৪লাইভ’র প্রতিবেদকের। আলাপচারিতায় তিনি কথা বলেছেন নানান বিষয়ে।

আপনি নাকি উপনির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন? এমন প্রশ্নের জনাবে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি নির্বাচন করবো। তবে যদি বিএনপি দল শপথ না নেয় তাহলে আমি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।’

কিছুদিন আগে আপনি জেল থেকে বের হয়েছেন, আপনি কি মনে করেন আপনি নির্বাচনে দাঁড়ালে আপনাকে আপনার শুভকাঙ্খিরা বা এলাকার জনগণ আপনাকে ভোট দিবে? জবাবে হিরো আলম বলেন, ‘আমি ভোটে দাঁড়াবো। জনগণ ভোট না দিলেও আমি নির্বাচন করবো। আমার জনপ্রিয়তার যায়গা থেকে আমি নির্বাচন করেবো। আমার ভুল ছিল, আমি স্বীকার করেছি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলা থাকে। এখন আমি সংসার করছি ঠিক মত’।

স্ত্রী ও শশুরের দায়ের করা মামলায় জেলে যেতে হয়েছে এই অভিনেতাকে। আলমের সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি জেল থেকে মুক্তি পেয়েছেন তিনি। এরপর তিনি সংসার জীবনে মনোযোগী হয়েছেন বলে জানা গেছে পারিবারিক সূত্রে।

শনিবার (২০ এপ্রিল) শনিবার হিরো আলম বিডি২৪লাইভকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। সে সময় তিনি বলেন,‘আমি তো ভালো ছিলাম। আমি এর আগে তো জেলে যায়নি। তাই একটু খারাপ লেগেছে কিন্তু ভিতরে সবাই আমাকে চিনেছে কথা বলেছে। আমি ইনজয় করেছি বিষয়টি।’

‘আমি এখন বগুড়ায় আছি। আমার স্ত্রী সন্তান নিয়ে ভালো আছি। ভুল মানুষের হয়। জেল খানা তো আর নিজের বাড়ি না। টুকটাক সমস্যা তো থাকেই। আমার জন্য কোন সমস্যা মনে হয়নি। আশা করি এই ধরণের আর কোন ঝামেলা হবে না। আমি খুব শীঘ্রই ঢাকা ফিরবো।’

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে বগুড়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার তার জামিন মঞ্জুর করেন। স্ত্রী সুমি বেগম সংসার করবেন বলে রাজি হওয়ার ভিত্তিতে তার জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। এ সময় আদালতে হিরো আলম ও তার স্ত্রী দুজনেই উপস্থিত ছিলেন।

হিরো আলমের শ্বশুর (বাদী) মামলায় আপস করায় এবং স্ত্রী সুমি বেগম তার সঙ্গে সংসার করতে চাওয়ায় এ আদেশ দেওয়া হয় বলে জানা যায়।

জেলখানায় থাকার স্মৃতি ব্যক্ত করতে গিয়ে হিরো আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘জেলখানায় ভালো ছিলাম, সেখানে আমাকে বেশ আপ্যায়ন করা হয়েছে। জেলখানায় অন্যান্য কয়েদিদের সঙ্গে গল্প গুজব করে সময় কাটিয়েছি। এছাড়া অবসরে সামনের বইমেলার জন্য কিছু লেখালেখিও করেছি।’

জামিনের ব্যাপারে হিরো আলমের আইনজীবী মাসুদার রহমান স্বপন বলেন, ‘হিরো আলমের জামিন শুনানিকালে তার স্ত্রী কোনো আপত্তি জানাননি। বরং আদালতকে বলেছেন, নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণে মামলা করেছেন।’

এর আগে স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ৬ মার্চ হিরো আলমকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: