প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

অর্ধউলঙ্গ শরীরের ভিডিও পোস্টকারী সেই বাদশা ট্যাটু কারাগারে

প্রকাশিত: ০৬:৫৬ অপরাহ্ণ, ২১ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

একজন অর্ধউলঙ্গ নারীর শরীরে হাত দিয়ে ম্যাসেজ করা ও কুরুচিপূর্ণ কথা বলার ভিডিও তৈরি করে তা ভাইরালের অপরাধে গ্রেফতার তরিকুল ইসলাম বাদশাহ ওরফে বাদশা ট্যাটুকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ রবিবার (২১ এপ্রিল) তিনদিনের রিমান্ড শেষে তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ।

এ সময় মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। অন্যদিকে তার আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মো. নোমান তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে বুধবার তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এসময় রাজধানীর রমনা থানায় পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম জিয়াউর রহমান তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মঙ্গলবার রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় অশ্লীল ভিডিওসহ মোবাইল ফোন ও তার ফেসবুক আইডি এবং পেজটি (ট্যাটু স্টুডিও নিউমার্কেট) জব্দ করা হয়। ওই ভিডিওতে থাকা মেয়েটিকেও খুঁজছে পুলিশ।

ডিএমপির সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘সম্প্রতি এক নারীর অর্ধউলঙ্গ শরীরের নিম্নাংশে একজন পুরুষ বিভিন্ন রকম তামাশা ও শরীরে হাত দিয়ে ম্যাসেজ করে বাংলায় কুরুচিপূর্ণ কথা বলায় ভিডিওটি ভাইরাল হয়। তরিকুল বাদশাহ্ তার নিজস্ব ট্যাটু স্টুডিও নিউমার্কেট ফেসবুক পেজে সেগুলো অশ্লীল পর্নো ভিডিও বানিয়ে প্রকাশ করেছে। সম্প্রতি এই ভিডিও ব্যাপক ভাইরাল হয়। অনেকেই এই ভিডিও শেয়ার করে এবং অনলাইনে অনেকেই এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য মন্তব্য করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ ধরনের অশ্লীল অঙ্গভঙ্গিযুক্ত ভিডিও নিঃসন্দেহে নিরাপদ ইন্টারনেটের জন্য হুমকি। তাই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

এর আগে, মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা থেকে বাদশা ট্যাটুকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় অশ্লীল ভিডিওসহ তার মোবাইল ফোনও জব্দ করা হয়। এছাড়া তার ফেসবুক আইডি ও তার ট্যাটু স্টুডিও নিউমার্কেট পেজটিও বন্ধ করে দিয়েছে সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগ।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: